শেয়ার

ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসের ভীরে মিড রেঞ্জ মোবাইলেরও কিন্তু ভালো চাহিদা আছে। ইদানিং দেশী মোবাইলের মধ্যে মিড রেঞ্জ বাজেটে ওয়ালটন রাজত্ব করছে। আজকে আমার রিভিউ-এ কথা বলবো ওয়ালটনের নতুন ডিভাইস Primo F7s  নিয়ে। ৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ডিভাইসটি আপনার আশা পূরণে সক্ষম। ডিভাইসটিতে রয়েছে ৫.২” FWVGA স্ক্রিন, ১ জিবি র‌্যাম, ৮ জিবি র‌ম ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সহ আরো অনেক কিছু। চলুন কালক্ষেপন না করে ডিভাইসটির কনফিগারেশন একটু জেনে নেই:

ডিভাইসের নাম Primo F7s
ডিসপ্লে: ৫.২” FWVGA Screen
প্রোটেকশন নেই
র‌্যাম ১ জিবি
রম ৮ জিবি ( ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে)
সি.পি.ইউ ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
জি.পি.ইউ মালি ৪০০
ক্যামেরা রিয়্যার ৫ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ৫ মেগাপিক্সেল
ব্যাটারি ২২৫০ মিলি এ্যম্পিয়ার
দাম ৫,২৯৯ টাকা
ডিসপ্লে এবং টাচ

Primo F7s এ রয়েছে ৫.২” FWVGA স্ক্রিন। ডিসপ্লে রেজুল্যূশন হলো ৮৫৪ * ৪৮০ পিক্সেল। ডিভাইসটিতে ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্ট করে। প্রোটেকশনের ব্যপারে ওয়ালটন কিছু না জানালেও নিশ্চত ভাবে বলা যায় কোন প্রোটেকশন গ্লাস ইউজ হয়নি। কাজেই বুঝতেই পারছেন প্রোটেকশন গ্লাস ইউজ করা বাঞ্ছনিয়। ডিভাইসটির টাচ রেছপঞ্ছও কিন্তু দারুন রেসপঞ্ছিভ। ডিসপ্লে-তে ২ আংগুল পর্যন্ত মাল্টি টাচ সাপোর্ট করে।

র‌্যাম এবং রম

Primo F7s এ রয়েছে ১ জিবি র‌্যাম। এছাড়া ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী রয়েছে।  ইন্টারনাল মেমেরাী এক্সপ্যান্ডেবল (৬৪ জিবি পর্যন্ত)।

সি.পি.ইউ / জি.পি.ইউ

Primo F7s এ ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর পাশাপাশি রয়েছে মালি ৪০০ জি.পি.ইউ। বাইদা ওয়ে চিপসেট কিন্তু সেই চিরাচরিত মিডিয়াটেক-ই।

আনবক্সিং

Primo F7s এর সাথে আপনারা পাচ্ছেন

** একটি Standard Ear phone

** ইউ এস বি চার্জার উইথ ডাটা কেবল

**  সিম ইজেক্টর

** স্ট্যান্ডার্ড ইয়ার ফোন

আউটলুক

সামহাউ, এখন বেশির ভাগ ইউজার-রাই মেটালিক বডি পছন্দ করে। কিন্তু মেটালিক বডি লো বাজেটে পাওয়া কঠিন। তবে ওয়ালটন এখন দেশেই স্মার্টফোন তৈরী করায় এই কাজটা সহজ হয়েছে। সম্পূর্ণ মেটালিক ফ্রেম যুক্ত Primo F7sএর  ডিসপ্লে-তে রয়েছে ডিভাইসটিতে রয়েছে ৫.২” FWVGA স্ক্রিন।

ডিভাইসের ফ্রন্ট প্যানেলে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। ক্যামেরায় ফ্ল্যাশ লাইটও রয়েছে। প্রক্সিমিটি সেন্সর রয়েছে ফ্ল্যাশ লাইটের পাশেই।

ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল রয়েছে ডিভাইসের নিচের অংশে। ভলিউম রকার্স এবং পাওয়ার বাটন রয়েছে ডিভাইসের উপরের দিকে ডান পাশে।

মাইক্রো ইউ এস বি পোর্ট, ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট এবং স্পিকার রয়েছে ডিভাইসের উপরের দিকে। এছাড়া সিমকার্ড + ডুয়াল সিম কার্ড ট্রে রয়েছে ডিভাইসের ডান পাশে।

রিয়্যার প্যানেলে উপরের দিকে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং ফ্ল্যাশ লাইট।

ব্যাকপার্ট-টি নন রিমুভেবল। ব্যাটারি ব্যাকাপ রয়েছে ২২৫০ মিলি এ্যম্পিয়ার। ডিভাইসটির দৈর্ঘ্য ১৫০ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ৭৩.৯ মিলিমিটার এবং পূরুত্ব ৯.৭৫ মিলিমিটার। আর ডিভাইসটির ওজন ১৭২ গ্রাম।

হাতে সময় আছে নিশ্চয়-ই। উপরের আলোচনা গুলো একটু মিলিয়ে নিন।

ইউজার ইন্টারফেস

ইউজারস ইন্টারফেস নিয়ে আসলে বেশি কিছু বলার কিছু নেই। ষ্টক ইউজার ইন্টারফেসের আদলে তৈরী করা হয়েছে Primo F7s এর ইউজার ইন্টারফেস।

অপারেটিং সিস্টেম

Primo F7s এ অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে পাবেন Android 7.0 Nougat.

ক্যামেরা

Primo F7s এ সামনে এবং পেছনে উভয় দিকেই ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ইউজ করা হয়েছে। রিয়্যার এবং সেলফি ক্যামেরা কোয়ালটি ডিভাইসের দাম অনুযায়ী ভালই বলা যেতে পারে।

কানেক্টিভিটি এবং সেন্সর

Primo F7s এ যে সকল সেন্সর রয়েছে তা হলো: 

Accelerometer (3D), Gravity (3D),  Light, Proximity ইত্যাদি। 
Primo F7s এ যে সকল কানেক্টিভিটি রয়েছে: WI-FI, Bluetooth V4, Micro USB 2.0, OTA, Wireless Display, WLAN Hotspot ইত্যাদি।

স্পেশাল ফিচারস

** মাল্টি উইন্ডো: যারা এক সাথে একাধিক কাজ করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য উপকারী ফিচার এটি। তবে ব্যাক গ্রাউন্ডে একাধিক এ্যপ চালু থাকলে মোবাইল স্লো হতে পারে।

** 3 in one Sim card Tray: এটা বলা চলে এই বাজেটে কেন, এর ডাবল বাজেটেও নেই। Primo F7s এর সিম কার্ড ট্রে-তে রয়েছে ৩টা স্লট। যার ফলে এক সাথে ২টা সিমের পাশাপাশি আলাদা ভাবে মাইক্রো এসডি কাডও ব্যবহার করতে পারবেন।

বেঞ্চমার্ক স্কোর

Primo F7s এর গিকবেঞ্চ টেস্ট করেছি। চলুন স্কোর দেখে আসি।

দাম

Primo F7s এর বাজার মূল্য রাখা হয়েছে ৫,২৯৯ টাকা। 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ