শেয়ার

“মেড ইন বাংলাদেশ” ট্যাগ-টা শুনলেই মনটা ভরে যায়। আর সেটা যদি হয় স্মার্টফোনের ক্ষেত্রে, তাহলে তো কথাই নেই। ওয়ালটন বাংলাদেশে প্রথম বারের মত তৈরী করছে স্মার্টফোন সম্পূর্ণ নিজস্ব প্রযুক্তিতে। বেশ কিছুদিন আগে আমি রিভিউ করেছিলাম ওয়ালটনের তৈরী প্রথম স্মার্টফোনের। আজকে আবারো এলাম ওয়ালটনের তৈরী আরো একটি স্মার্টফোনের রিভিউ নিয়ে। আজকে রিভিউ করবো ওয়ালটন Primo E8s নিয়ে।

চলুন বিস্তারিত আলোচনায় যাবার আগে জেনে নেই Primo E8s আপনাদের জন্য কি অফার করছে।

ডিভাইসের নাম Primo E8s
ডিসপ্লে: ৪.৫” FWVGA Screen (2.5D Curved)
প্রোটেকশন নেই
র‌্যাম ১ জিবি
রম ৮ জিবি ( ৩২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে)
সি.পি.ইউ ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
জি.পি.ইউ মালি ৪০০
ক্যামেরা রিয়্যার ৫ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ৫ মেগাপিক্সেল
ব্যাটারি ১৬০০ মিলি এ্যম্পিয়ার নন রিমুভেবল
দাম ৩,৯৯৯ টাকা
ডিসপ্লে

Primo E8s এ ব্যবহার করা হয়েছে ৪.৫” FWVGA Display. ডিসপ্লের রেজুল্যুশন হলো 854 x 480 Pixel. ডিসপ্লেতে ১৬.৭ মিলিয়ন কালার সাপোর্ট করে। তবে সবচেয়ে ভালা লাগা বিষয় হলো ডিসপ্লেতে ব্যবহার করা হয়েছে 2.5 D Curved Glass. যা ডিসপ্লের সৌন্দর্য-কে বাড়িয়ে দিয়েছে বহু গুন। ডিসপ্লেতে ২ আংগুল পর্যন্ত মাল্টি টাচ সাপোর্ট করে।

র‌্যাম এবং রম

Primo E8s এ ব্যবহার করা হয়েছে ১ জিবি র‌্যাম এবং ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী। ইন্টারনাল মেমোরী ৩২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

সি.পি.ইউ / জি.পি.ইউ

Primo E8s এ ব্যবহার করা হয়েছে যথাক্রমে ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর এবং মালি ৪০০ জিপিউ.

আনবক্সিং

Primo E8s  এর সাথে আপানার যে সকল জিনিস পাচ্ছেন:

 ** Standard Ear phone.

**  ইউ এস বি চার্জার উইথ ডাটা কেবল

** ইউজার ম্যানুয়াল এবং ওয়্যারেন্টি কার্ড।

বিল্ড কোয়ালিটি

Primo E8s এর বিল্ট কোয়ালিটি মোটামুটি পর্যায়ের। যেহেতু এখন পুরোটাই বাংলাদেশে তৈরী তাই প্রাথমিক পর্যায়ে বাজেটের সাথে তাল মিলিয়ে সব কিছু করা হচেছ। তবে ওয়ালটনের প্রিভিয়াস মডেল গুলোর সাথে তুলনা করলে বিল্ট কোয়ালিটি যথেষ্ট্য ভালো।  ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলে উপরের দিকে রযেছে ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। এছাড়া ৩টি ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল রয়েছে অফস্ক্রিন।

ভলিউম রকার্স এবং পাওয়ার বাটন রয়েছে বরাবরের মতই যুগল বন্দি, ডিভাইসের ডান পাশে উপরের অংশে।মাইক্রো ইউ এস বি পোর্ট এবং ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট রাখা  হয়েছে ডিভাইসের উপরের দিকে। ডিভাইসটির ব্যাক কভারটি সম্পূর্ণ রিমুভেবল। রিয়্যার প্যানেলে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা উইদ ফ্ল্যাশ লাইট। ক্যামেরা বাম্প-টি একটু উচু, সো ব্যবহারের সময় ক্যামেরা বাম্পে যেন ঘষা না লাগে সে বিষয়ে আপনদের খেয়াল রাখতে হবে।

ব্যাটারি ব্যাকাপ রয়েছে ১৬০০ মিলি এ্যম্পিয়ার, যদিও এটা আমার কাছে একটু কম মনে হয়েছে। ব্যাটারির উপরের দিকে রয়েছে ২টি সিম কার্ড এবং মেমোরী কার্ড স্লট।

ডিভাইসটির দৈর্ঘ্য ১৩৩.৫ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ৬৭ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব ৯.৯ মিলিমিটার। ব্যাটারি সহ ডিভাইসটির ওজন ১৩০.৮ গ্রাম। 

অপারেটিং সিস্টেম

Primo E8S এ রয়েছে এ্যন্ড্রয়েড নোগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেম।

ক্যামেরা

Primo E8s এ ফ্রন্ট এবং ব্যাকপার্টে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরা কোয়ালিটি মোটামুটি পর্যায়ের। এছাড়া সরাসরি 3G Video calling এর জন্য সেলফি ক্যামেরা কিন্তু আপনাকে ভালই সাপোর্ট দিবে।

ইউজার ইন্টারফেস

ইউজার ইন্টারফেস একেবারে স্টক ঘরানার। কোন নতুনত্ব নেই। আর আমরা যারা সাধারণ ইউজার, তাদের কাছে ইউজার ইন্টারফেসের গুরুত্ব বেশি হবার কথা না। ইউ.আই ট্র্যানজিশন ছিলো বেশ স্মুদ।

কানেক্টিভিটি এবং সেন্সর

Primo E8s এ যে সকল সেন্সর রয়েছে তা হলো: Wi-Fi b/g/n, Bluetooth, Micro USB V2, WLAN Hotspot, OTA
Primo HM4 এ যে সকল কানেক্টিভিটি রয়েছে: Accelerometer (3D),  Proximity sensor, GPS ইত্যাদি।

স্পেশাল ফিচারস

Primo E8s এর বেশ কিছু ফিচার আমার কাছে ভালো লেগেছে। চলুন জেনে নেই ফিচার গুলো।

** 2.5D Curved Glass

** Quad Core Processor, যা এই বাজেটে অকল্পনীয়।

** 3G Video call support

বেঞ্চমার্ক স্কোর

Primo E8s এর বেঞ্চমার্ক স্কোর আমাকে সন্তুষ্ট করেছে। এই রকম কমদামী ডিভাইসে এ্যনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর বেশ ভালো।

দাম

Primo E8s এর মূল্য রাখা হয়েছে ৩,৯৯৯ টাকা মাত্র।

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ