শেয়ার

বর্তমানে স্মার্টফোন দুনিয়ায় যে নামটি বেশি প্রচলিত তা হলো পোট্রেইট মোড। এই মোডে ছবি তোলার আলাদা একটি মজা আছে। তবে খুব বেশি মোবাইলে এই সুবিধা কিন্তু নেই। কেননা এই মোডে ছবি তোলার জন্য ডুয়াল ক্যামেরা মোবাইল এবং বিশেষ সফ্টওয়্যার প্রয়োজন হয়। যা খুব বেশি মোবাইলে নেই। কিন্তু আপনাদের জন্য সেই সুবিধা নিয়ে আসলো ওয়ালটন। মাত্র ৬,৬৯০ টাকার স্মার্টফোনে আপনারা পাচ্ছেন Portrait সুবিধা তাও আবার সিংগেল ক্যামেরাতেই। আর এই সুবিধা আপনারা পাচ্ছেন Walton Primo NH3i স্মার্টফোনে। ডিভাইসটির আরো যে সকল দিকে রয়েছে তা হলো ৫.৫” HD IPS Display, 1.3 GHz Quad Core Processor, 1 GB Ram, 8 GB Rom ইত্যাদি। ডিভাইসটির বিস্তারিত আলোচনায় যাবার আগে দেখে নেই ডিভাইসটির কনফিগারেশন।

ডিভাইসের নাম Primo NH3i
ডিসপ্লে: ৫.৫” HD IPS Display
প্রোটেকশন নেই
র‌্যাম ১ জিবি
রম ৮ জিবি ( ৬৪ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে)
সি.পি.ইউ ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
জি.পি.ইউ মালি ৪০০
ক্যামেরা রিয়্যার ৫ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ৫ মেগাপিক্সেল
ব্যাটারি ২৫০০ মিলি এ্যম্পিয়ার নন রিমুভেবল
দাম ৬৬৯০ টাকা
ডিসপ্লে

Primo NH3i  এ রয়েছে ৫.৫” IPS HD Display. ডিসপ্লের ডে- লাইট ভিজিবিলিটি এক কথায় দারুন। টাচ রেছপঞ্ছ দারুন এবং ল্যাগ ফ্রি। ডিসপ্লে-তে ৫ আংগুল পর্যন্ত এক সাথে টাচ করা যাবে।

র‌্যাম এবং রম

ডিভাইসটিতে রয়েছে ১ জিবি র‌্যাম এবং ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী। তবে ৬৪ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল মেমোরী বাড়ানো যাবে।

সি.পি.ইউ / জি.পি.ইউ

Primo NH3i এ রয়েছে ৩২ বিট ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর। চিপসেট ইউজ করা হয়েছে মিডিয়াটেক ৬৫৮০, সাথে রয়েছে মালি ৪০০ জি.পি.ইউ। দামের কথা চিন্তা করলে এটা এই বাজেটে পর্যাপ্ত।

ইউজার ইন্টারফেস

Primo NH3i এর ইউজার ইন্টারফেস আমার কাছে ওকে লেগেছে। আইকন গুলো কালারফুল এবং কাস্টামাইজড। ট্রানজিশন ছিলো স্মুদ এবং যথেষ্ট্য ফাষ্ট।

আনবক্সিং

Primo NH3i  এর সাথে আপানার যা যা পাচ্ছেন:

 ** Standard Ear phone.

**  ইউ এস বি চার্জার উইথ ডাটা কেবল

** ইউজার ম্যানুয়াল এবং ওয়্যারেন্টি কার্ড।

বিল্ড কোয়ালিটি

Plastic Made ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলে উপরের দিকে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। সেলফি ক্যামেরায় কিন্তু ফ্ল্যাশ লাইটও ব্যবহার করা হয়েছে।এছাড়া ৩টি সফ্ট ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল রয়েছে ডিসপ্লের নিচের দিকে।ভলিউম রকার্স, পাওয়ার বাটন রয়েছে ডিভাইসের ডান পাশে উপর বরাবর।মাইক্রো ইউ.এস.বি পোর্ট + ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট রয়েছে ডিভাইসের উপরের দিকে।

রিয়্যার প্যানেলে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা উইদ ফ্ল্যাশ লাইট। তবে রিয়্যার প্যানেলের ক্যামেরা বাম্প-টা আইফোন এক্স এর সাথে একেবারে মিলে যাবে।ব্যাকপার্ট-টি রিমুভেবল এবং ব্যাটারি ব্যাকাপ পাবেন ২৫০০ মিলি এ্যম্পিয়ার। ব্যাটারির উপরের দিকে রয়েছে ২টি সিম কার্ড এবং মেমোরী কার্ড স্লট।

অপারেটিং সিস্টেম

Primo NH3i এ্যন্ড্রয়েড নোগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে।

ক্যামেরা

Primo NH3i এ ফ্রন্ট এবং ব্যাকপার্টে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। সেলফি ক্যামেরায় ফ্ল্যাশ লাইট থাকায় যখন তখন সেলফি তোলা যায়। তবে রিয়্যার ক্যামেরার ডিজাইন-টা ব্যক্তিমত ভাবে আমার ভালো লেগেছে এর ইউনিক ডিজাইনের জন্য। ক্যামেরা কোয়ালিটি মান সম্মত। রিয়্যার ক্যামেরায় বেশ কিছু স্পেশালিটি দেয়া হয়েছে। এর উল্ল্যেখ যোগ্য হলো পোর্ট্রেইট মোড যা এখন ফ্ল্যাগশিপ টাইপ স্মার্টফোনেই বেশি দেখা যায়। চলুন, ক্যামেরা দিয়ে তোলা কিছু ছবি দেখে নেই।

কানেক্টিভিটি এবং সেন্সর

Primo NH3i এ যে সকল সেন্সর রয়েছে তা হলো: 

Accelerometer (3D), Gravity (3D), Gyroscope, Rotation Vector, Linear Acceleration, Light, Proximity, Magnetic Field (Compass), Orientation, Primo NH3i এ যে সকল কানেক্টিভিটি রয়েছে: WI-FI, Bluetooth V4, Micro USB 2.0, OTA, WLAN Hotspot ইত্যাদি।

স্পেশাল ফিচারস

ডিভাইসটির স্পেশাল ফিচার বলতে গেলে বলতে হয় স্মার্ট জেশ্চার। ডিভাইসটি অফ থাকা অবস্থায় ডিসপ্লের উপরে আংগুল দিয়ে সাংকেতিক চিহ্ন আকলে বিভিন্ন ফাংশন অন করা যায় মোবাইল অফ থাকার পরেও।

এছাড়া আরো রয়েছে মাল্টি উইন্ডো ইউজ করার সুবিধা। অর্থাৎ এক সাথে একাধিক এ্যপলিকেশনের কাজ করতে পারবেন আপনারা মাল্টি উইন্ডো অপশন চালু করার পর।

বেঞ্চমার্ক স্কোর

আমরা Primo NH3i এর বেঞ্চমার্ক টেস্ট করেছি। এ্যন্টুটু এবং গিকবেঞ্চ স্কোর কিন্তু দাম অনুযায়ী সুপার্ব।

দাম

Primo NH3i এর মূল্য রাখা হয়েছে ৬৬৯০ টাকা মাত্র।

 

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ