শেয়ার

বাংলাদেশে ওয়ালটন-ই একমাত্র কোম্পানী যারা প্রতি মাসেই বিভিন্ন বাজেটের স্মার্টফোন রিলিজ করে। ক্রেতা এবং ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখেই ওয়ালটন প্রায় ৫ বছর ধরে বিভিন্ন বাজেটের স্মার্টফোন বাজারে লঞ্চ করে আসছে। স্মার্টফোন বাজারে ছাড়ার ক্ষেত্রে ওয়ালটন যে বিষয়টা মাথায় রাখে তা হলো ক্রেতাদের চাহিদা, বাজেট এবং সাম্প্রতিক প্রযুক্তি।

সেই ধারাবাহিকতায় ওয়ালটন আপনাদের জন্য নিয়ে এলো তাদের নতুন একটি স্মার্টফোন Walton Primo N3. তবে এটাকে স্মার্টফোন না বলে স্মার্ট ফ্যাবলেট বলাই ভালো বিশালাকার সাইজের জন্য।

ফ্যাবলেট-টিতে রয়েছে এ্যন্ড্রয়েড নোগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেম, ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর, ২ জিবি র‌্যাম, ১৬ জিবি বিল্ট ইন মেমোরি। রয়েছে ৬” এইচ.ডি ডিসপ্লে। বিস্তারিত আলোচনা করার আগে বলে নেই ফ্যাবলেট-টির মূল্য ১০,২৯০ টাকা।

এক নজরে Primo N3 এর স্পেসিফিকেশন
                                    বিবরণ
                                      Primo N3
ডিসপ্লে ৬” এইচ.ডি ডিসপ্লে।
প্রোটেকশন নেই।
র‌্যাম ২ জিবি।
রম ১৬ জিবি (১২৮ জিবি পর্যন্ত এক্সপ্যান্ডেবল)।
ক্যামেরা রিয়্যার ১৩ মেগাপিক্সেল।
ফ্রন্ট ৫ মেগাপিক্সেল।
প্রোসেসর ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
ব্যাটারি ৩৩০০ মিলি এ্যম্পিয়ার
মূল্য ১০,২৯০ টাক।
মোবাইলটির সাথে আপনারা যে সকল জিনিস পাচ্ছেন তা হলো

** ইউজার ম্যানুয়্যাল ও ওয়্যারেন্টি কার্ড।

** ইউ এস বি চার্যার এবং ডাটা কেবল

** ইয়ার ফোন

অপারেটিং সিস্টেম

ডিভাইসটি এন্ড্রয়েড নোগাট ৭.০ চালিত।

ডিজাইন এবং বিল্ট কোয়ালিটি

ফ্যাবলেট-টির বিল্ট কোয়ালিটি একটু ইউনিক। ডিভাইসটি হাতে নিলে মনে হবে ডিভাইসটি সম্পূর্ণ মেটালের তৈরী। ফ্যাবলেট-টির ব্যাকপার্ট মেটাল এবং প্লাষ্টিকের কম্বিনেশনে তৈরী। ব্যাক পার্টের মিডল পার্ট মেটালের। আর উপরের এবং নিচের অংশ টুকু প্লাষ্টিকের তৈরী। এই মোবাইলের ডিসপ্লে-তে ব্যবহার করা হয়েছে আই পি এস প্রযুক্তি। ফ্যাবলেট-টি তে রয়েছে ৬” এইচ ডি ডিসপ্লে। ডিভাইসটির ডিসপ্লের উপরের অংশে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। আর তার ঠিক পাশেই রয়েছে প্রক্সিমিটি সেন্সর।

ডিভাইসটির একদম নিচের দিকে রয়েছে ৩টি ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল।

ডিভাইসটির ডান পাশে উপরের দিকে রয়েছে ভলিউম রকারস বাটন। আর তার ঠিক নিচেই রয়েছে পাওয়ার বাটন।

মাইক্রো ইউ এস বি পোর্ট এবং ৩.৫ মিলিমিটার অডিও জ্যাক পোর্ট রয়েছে ডিভাইসটির উপরের অংশে।

ডিভাইসটির বডি তুলনামুলক একটু বড় বলে হ্যান্ড গ্রিপ মোটেই সুবিধার নয়। ডিভাইসটির রিয়্যার প্যানেলে রয়েছে ডুয়াল এল.ই.ডি ফ্ল্যাশ সহ ১৩ মেগাপিক্সেল অটো ফোকাস ক্যামেরা। ক্যামেরার নিচের দিকেই রয়েছে সুপার ফাষ্ট ফিংগার প্রিন্ট সেন্সর।

মোবাইলের ব্যাক কভার খুললে পাবেন ৩৩০০ মিলি এ্যম্পিয়ার রিমুভেবল ব্যাটারি। ব্যাটারির উপরের দিকে রয়েছে ২টি ডুয়াল ৩জি সিম স্লট। এছাড়া ১২৮ জিবি মাইক্রো ইউ এস বি স্লট তো রয়েছেই। মোবাইলটির দৈর্ঘ্য ১৬১.৩ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ৮৪.৯ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব মাত্র  ৮.৬ মিলিমিটার। এছাড়া মোবাইলটির ওজন ব্যাটারি সহ ২০৪  গ্রাম।

উপরের আলোচনা গুলো একটু মিলিয়ে নেই।

ডিসপ্লে এবং টাচ কোয়ালিটি

Walton Primo N3 এর ডিসপ্লে-তে ব্যবহার করা হয়েছে ৬”এইচ.ডি আই পি এস ডিসপ্লে। ডিসপ্লে রেজুল্যুশন হলো ১২৮০ X ৭২০ পিক্সেল। আর মোবাইলের ডিসপ্লেতে ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্ট করে। ডিসপ্লে-তে কোন প্রোটেকশন ব্যবহার করা হয়নি। ফ্যাবলেট-টিতে ফুল এইচ ডি ভিডিও (১০৮০x১৯২০ পিক্সেল) ভিডিও দেখতে পারবেন কোন প্রকার ল্যাগিং ছাড়া। ফ্যাবলেট-টির টাচ দারুন এবং রেসপন্সিভ। বিন্দু মাত্র ল্যাগিং পাইনি। আর এই মোবাইলের ডিসপ্লেতে ৫ আঙ্গুল পর্যন্ত মাল্টিটাচ সাপোর্ট করে।

ডিসপ্লেতে মিরাভিশন টেকনোলজি ব্যবহার করায় ডিসপ্লের ব্রাইটনেস চোখের সাথে এডজাষ্ট করে নিতে পারবেন।

সি.পি.ইউ এবং জি.পি.ইউ

Walton Primo N3 এ ব্যবহার করা হয়েছে ৬৪ বিট ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রোসেসর। এছাড়া Primo N3 এ জি.পি.ইউ রয়েছে মালি ৪০০ 

র‌্যাম এবং রম

Primo N3-এ রয়েছে ২ জিবি র‌্যাম এবং ১৬ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী। ২জিবি র‌্যামের মধ্যে আপনারা ইউজার এ্যভেইলেবল র‌্যাম পাবেন ১.৯ জিবি পর্যন্ত। আর ১৬ জিবি ইন্টারনাল মেমোরীর মধ্যে আপনারা ইউজার এ্যভেইলেবল ১০.৯ জিবি ইউনিফাইড স্টোরেজ হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। আর বাকি যায়গা টুকু মোবাইলের ও.এস এবং বিল্ট ইন এ্পস ইনষ্টলের জন্য ব্যবহৃত হয়েছে। এছাড়া  ১২৮ জিবি পর্যন্ত এক্সটার্নাল মেমোরী কার্ড ব্যবহার করার সুবিধা তো রয়েছেই।

ইউজার ইন্টারফেস

সম্পূর্ণ স্টক নোগাটের টেষ্ট পাবেন ফ্যাবলেট-টিতে। নোটিফিকেশন বার, এ্যপ ড্রয়ার সকল কিছুতেই রয়েছে স্টক নোগাটের ছোঁয়া। তবে অনেকের কাছে কিছুটা স্লো মনে হতে পারে। সেক্ষেত্রে মাঝারি সাইজের লঞ্চার ইউজ করে দেখতে পারেন।

ক্যামেরা

ফ্যাবলেট-টিতে রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল অটোফোকাস রিয়্যার ক্যামেরা। ক্যামেরায় ডুয়াল ফ্ল্যাশ ব্যবহার করা হয়েছে। যারফলে  আপনারা রাতের বেলায়ও ভালো কোয়ালিটির ছবি তুলতে পারবেন। ডিভাইসটি দিয়ে তোলা ছবি আপনারা নিচে দেখতে পারবেন। এছাড়া সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। Primo N3 এর রিয়্যার ক্যামেরা দিয়ে ফুল এইচ ডি রেজুল্যুশনে (১০৮০X১৯২০ পিক্সেল) ভিডিও করতে পারবেন। ডিভাইসটি দিয়ে তোলা ছবির কোয়ালিটি  ভালোমানের। চলুন এখন ডিভাইসটি দিয়ে তোলা কিছু স্থির চিত্র দেখে নেই।

রিয়্যার ক্যামেরা:

ফ্রন্ট ক্যামেরা:

কানেক্টিভিটি ও সেন্সর

এই ফ্যাবলেট-টির কানেক্টিভিটির মধ্যে রয়েছে ওয়াই-ফাই, ব্লু-টুথ ভার্সন ৪, মাইক্রো ইউ এস বি ভার্সন ২, এইচ.এস.পি.এ+,  ওয়াই-ফাই হটস্পট ইত্যাদি। আর যে সকল সেন্সর ইউজ করা হয়েছে সে গুলো হলো এ্যকসেলোমিটার ৩ডি, লাইট সেন্সর, এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর, হল সেন্সর এবং বায়োমেট্রিক ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

গেমিং পারফরমেন্স

ফ্যাবলেট-টিতে আপনারা মডার্ন কম্ব্যাট সহ ফিফা ১৫-১৬, এসফাল্ট ৮ ইত্যাদি গেমস গুলো খেলতে পারবেন স্বাচ্ছন্দে। তবে ব্যাকগ্রাউন্ডে এ্যপস রানিং রেখে বড় সাইজের গেমস না খেলাই ভালো।

ব্যাটারি ব্যাকাপ

ফ্যাবলেট-টির ব্যাটারী ব্যাকাপ হিসেবে রয়েছে ৩৩০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারী। তবে ফ্যাবলেট হিসেবে ব্যাটারী ব্যাকাপ আরো ভালো হতে পারতো।

স্পেশাল ফিচারস

ও.টি.এ:

অনলাইন এ ফ্যাবলেট-টির যাবতীয় আপডেট করার জন্য ও টি এ’র জুরি মেলা ভার। কাস্টমার কেয়ারে যেতে হবে না, মোবাইলের ডাটা বা WiFi হলেই হবে।

ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর:

ডিভাইসটির ব্যাক প্যানেলে অবস্থিত বায়োমেট্রিক ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর দিয়ে ডিভাইসটি মাত্র ০.২ সেকেন্ডেই আনলক করা যাবে।

মাল্টি উইন্ডো:

মাল্টি উইন্ডো এখন একটা কমন ব্যাপার। কেউ ইউজ করুক বা না করুক ফিচারটি কিন্তু গুরুত্ব পূর্ণ। Primo N3-তে আপনারা এক সাথে একাধিক উইন্ডো ইউজ করতে পারবেন।

ডুরা স্পিড:

ডিভাইসটির ব্যাটারী ব্যাকাপ ত্বরান্বিত করার জন্য ডুরা স্পিড একটা কার্যকরী অপশন। মূলত ডুরা স্পিড অপশন থেকে ব্যাকগ্রাউন্ড এ্যপস গুলোর ব্যাটারী কিলিং ক্ষমতাকে কমিয়ে দেয়া হয়।

বেঞ্চমার্ক স্কোর

ফ্যাবলেট-টির এ্যনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর এসেছে ২৩,৮৪২ এবং নেনামার্ক স্কোর এসেছে ৫৬.১ এফ.পি.এস।এছাড়া আমরা গিকবেঞ্চ টেষ্টও করেছি। চলুন এক নজরে দেখে নেই মোবাইলের গিকবেঞ্চ স্কোর।

দাম

বিশালাকার ফ্যাবলেটি-টির মূল্য ধার্য করা হয়েছে মাত্র ১০,২৯০ টাকা। 

সিদ্ধান্ত

বড় স্ক্রিনের স্মার্টফোন যারা ভালোবাসেন তাদের জন্য তাদের জন্য Primo N3 একটি আদর্শ স্মার্ট ফ্যাবলেট হতে পারে। দাম+কনিফগারেশন দুটোই আপনাদের সাধ্যের মধ্যে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ