শেয়ার

মাত্র ৭ হাজার টাকায় ব্যাসিক স্মার্টফোন নিয়ে আসলো ওয়ালটন। নাম Primo GM2.

ব্যাসিক বলতে আবার একেবারে সাধারণ মানের স্মার্টফোন ভাববেন না যেন। ৬,৯৯০ টাকার স্মার্টফোন-টি আপনার দৈনন্দিন জীবনের চাহিদা পূরনে সক্ষম। স্মার্ট ফোনটিতে রয়েছে ১ জিবি র‌্যাম, ৫” ডিসপ্লে, ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর সহ আরো অনেক কিছু। চলুন বিলম্ব না করে দেখে নেই ডিভাইসটির কনিফগারেশন।

                                       বিবরণ
                                  Primo GM2
ডিসপ্লে ৫” LCD IPS Display With 2.5D Curved Glass
প্রোটেকশন নেই
র‌্যাম ১ জিবি
রম ৮ জিবি (৬৪ জিবি পর্যন্ত এক্সপ্যান্ডেবল)
ক্যামেরা রিয়্যার ৮ মেগাপিক্সেল
ফ্রন্ট ৫ মেগাপিক্সেল
প্রোসেসর ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
ব্যাটারি ৪০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার
মূল্য ৬,৯৯০ টাকা।
Primo Gm2 এর সাথে  আপনারা যে সকল জিনিস পাচ্ছেন তা হলো

** ইউজার ম্যানুয়্যাল ও ওয়্যারেন্টি কার্ড।

** ইউ এস বি চার্যার

** ইয়ার ফোন

অপারেটিং সিস্টেম

Primo GM2-তে রয়েছে এ্যন্ড্রয়েড ৭.০ নোগাট  অপারেটিং সিস্টেম।

ডিজাইন এবং বিল্ট কোয়ালিটি

Primo GM2-এর ফ্রন্ট প্যানেলে উপরের দিকে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা উইথ ফ্রন্ট ফ্ল্যাশ লাইট।

উল্লেখ করার মত বিষয় হলো ডিভাইসটিতে রয়েছে ২.৫ ডি কার্ভড গ্লাস। যার ফলে ডিভাইসের আউট লুক এমনিতেই একটু জোস লাগে। ডিভাইসের নিচের দিকে রয়েছে ৩টি টাচ নেভিগেশন প্যানেল। ভলিউম রকার্স এবং পাওয়ার বাটন একসাথে পাশাপাশি রয়েছে ডিভাইসের উপরের দিকে ডান পাশে।

ইউ.এস.বি চার্জিং পোর্ট এবং অডিও জ্যাকপোর্ট বাটন রয়েছে একদম ডিভাইসের উপরের অংশে।

প্ল্যাষ্টিক মেইড Primo Gm2 এর ব্যাক সাইড ব্রাশড রাউন্ডেড এবং কার্ভড। রিয়্যার প্যানেলে উপরের অংশে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা উইথ ডুয়ালটোন এল.ই.ডি ফ্ল্যাশ লাইট।

ব্যাকপার্ট-টি রিমুভেবল হলেও ব্যাটারী কিন্তু নন রিমুভেবল। তবে সবচেয়ে বড় প্ল্যাস পয়েন্ট হলো ডিভাইসটি-তে রয়েছে ম্যাসিভ ৪০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারী। আরো রয়েছে ২টি হাইব্রিড সিম কার্ড স্লট। অর্থাৎ ২টা সীম কার্ড এস সাথে, অথবা একটা সিমকার্ড এবং মাইক্রো এস.ডি কার্ড ইউজ করতে পারবেন।

মোবাইলটির দৈর্ঘ্য ১৪৬.৫ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ৭২ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব মাত্র  ৯.৬৫ মিলিমিটার। এছাড়া মোবাইলটির ওজন ব্যাটারি সহ ১৬৭.‌‌১  গ্রাম।

ডিসপ্লে এবং টাচ কোয়ালিটি

Primo GM2’র ডিসপ্লে-তে ব্যবহার করা হয়েছে ৫” আই.পি এস এল.সি.ডি ডিসপ্লে।  ডিসপ্লের গ্লাস হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ২.৫ কার্ভড ডিসপ্লে। বলা বাহুল্য ডিভাইসের পিক্সেল ডেনসিটি ২৯৪ পি.পি.আই। তবে ডিসপ্লে প্রোটেকশনের জন্য টেম্পারড গ্লাস ব্যবহার করাই বেটার। ৭২০ পিক্সেল ডিসপ্ল যুক্ত ডিভাইসটির রেজুল্যুশন হলো ১২৮০ X ৭২০ পিক্সেল। ডিভাইসটিতে ১৬ মিলিয়ন কালার সাপোর্ট করে। ওভারল টাচ রেছপঞ্ছ দারুন। আর এই মোবাইলের ডিসপ্লেতে ৫ আঙ্গুল পর্যন্ত মাল্টিটাচ সাপোর্ট করে।

সি পি ইউ এবং জি পি ইউ

Walton Primo Gm2 এর ব্যবহার করা হয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রোসেসর। এছাড়া Walton Primo Gm2 এ মালি ৪০০ জি.পি.ইউ ব্যবহার করা হয়েছে যা মিড রেঞ্জের মোবাইলে এখন বহুল প্রচলিত।

র‌্যাম এবং রম

Walton Primo Gm2-এ রয়েছে ১ জিবি র‌্যাম এবং ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী। ১জিবি র‌্যামের মধ্যে আপনারা ইউজার এ্যভেইলেবল র‌্যাম পাবেন ৯৫০ মেগাবাইট পর্যন্ত। আর ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরীর মধ্যে আপনারা ইউজার এ্যভেইলেবল প্রায় ৫ জিবি।তবে মেমোরী কার্ড ৬৪ জিবির বেশি ইউজ করার সুবিধা নেই।

ইউজার ইন্টারফেস

Primo GM2’র ইউজার ইন্টারফেসে ষ্টক নোগাটের আদলে তৈরী। তবে এ্যপলিকেশন আইকন গুলো কাষ্টমাইজ করা।

ক্যামেরা

Primo GM2’র সেলফি ক্যামেরায় রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা উইথ ফ্ল্যাশ লাইট। এছাড়া রিয়্যার প্যানেলে রয়েছে ডুয়াল ফ্ল্যাশ লাইট সহ ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরার কোয়ালিটি আমাকে বেশ অবাক করেছে। ক্যামেরা কোয়ালটি যথেষ্ট ভালো। এছাড়া ইনডোর শ্যূটিং এর ক্যামেরা নয়েজ খুব-ই কম ছিলো। চলুন এখন মোবাইল দিয়ে তোলা কিছু স্থির চিত্র দেখে নেই।

রিয়্যার ক্যামেরা:

ফ্রন্ট ক্যামেরা:

কানেক্টিভিটি ও সেন্সর

এই মোবাইলের কানেক্টিভিটির মধ্যে রয়েছে ওয়াই-ফাই, ব্লু-টুথ ভার্সন ৪, মাইক্রো ইউ এস বি ভার্সন ২, ওয়াই-ফাই হটস্পট, ও.টি.জি ইত্যাদি। আর যে সকল সেন্সর ইউজ করা হয়েছে সে গুলো হলো এ্যকসেলোমিটার ৩ডি, লাইট সেন্সর, এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর।

ব্যাটারি ব্যাকাপ

এই মোবাইলে ব্যবহার করা হয়েছে জাম্বো ৪০০০ মিলি এ্যাম্পিয়ার লি-আয়ন নন রিমুভেবল ব্যাটারি। নরমাল ব্রাউজিং, গেমিং, কথা বলা সহ সকল কিছু করার জন্য ১৬-১৮ ঘন্টা ইজিলি ব্যাটারি ব্যাকাপ পাবেন।

স্পেশাল ফিচারস

ও.টি.এ এবং ও.টি.জি

এই দুটো ফিচার সম্পর্কে আপনার এখন আর বিষদ বর্ণনা দিতে হবেনা মনে হয়। কেননা এই ফিচার গুলো আমার আগের রিভিউ-এর বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আপনার মোবাইল অনলাইন আপডেট এর জন্য ও টি এ একটি বিশেষ সুবিধা যা বিশ্বের সকল স্মার্টফোনেই রয়েছে। আর ও.টি.জি কি বা এর কাজ কি, এটা তো আপনারা ইতিমধ্যেই আমার রিভিউ এর মাধ্যমে জানতে পেরেছেন। মোবাইলে মাউস, কি-বোর্ড, পেন ড্রাইভ ইউজ করতে পারবেন।

বেঞ্চমার্ক স্কোর

মোবাইল কিনবেন, অথচ মোবাইলের বেঞ্চমার্ক টেষ্ট করবেন না, তা কি হয়? আমরা আপনাদের সুবিধার  জন্যে মোবাইলে এ্যনটুটু বেঞ্চমার্ক, নেনামার্ক এবং গিকবেঞ্চ টেষ্ট করেছি। চলুন এক নজরে দেখে নেই মোবাইলের বেঞ্চমার্ক স্কোর গুলো কেমন।

মোবাইলের এ্যনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর এসেছে ২৩,৮৫৭ এবং নেনামার্ক স্কোর এসেছে ৪৯ এফ.পি.এস। 

দাম

এই মোবাইলের দাম ধার্য করা হয়েছে মাত্র ৬,৯৯০ টাকা। মোবাইলের কনফিগারেশন অনুযায়ী দাম খুব-ই রিজোনেবল এবং হাতের নাগালে। দামে কম আর ফিচারের জন্যই গ্রাহকদের কাছে এই মোবাইলের চাহিদা অন্যান্যা মোবাইলের চেয়ে একটু হলেও বেশি।

সিদ্ধান্ত

দাম আর ফিচারের কথা যদি আমরা কেউ এখন চিন্তা করি, তাহলে আমার একান্ত অভিমত কেউ চাইলে আমি তাকে অবশ্যই এই মোবাইলটি কিনতে বলবো, কেননা এই দামে এই রকম ফিচার সমৃদ্ধ মোবাইল পাওয়া যাবে খুব কম-ই। 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ