শেয়ার
lets know about computer virus

আমরা সবাই মোটামোটি এখন কম্পিউটার বাবহার করি,কিন্তু হয়তো অনেকই জানি না কম্পিউটার এর ভাইরাস সম্পকে ।যার কাড়নে অনেককেই নানা ধরনের সমস্যায় পরতে হচ্ছে ।

চলুন তাহলে যেনে নেই কম্পিউটার ভাইরাস সম্পর্কে।

                        কম্পিউটার ভাইরাস কি?

কম্পিউটার ভাইরাস হল এক ধরনের কম্পিউটার প্রোগ্রাম যা ব্যবহারকারীর অনুমতি বা ধারণা ছাড়াই নিজে নিজেই কপি হতে পারে। মেটামর্ফিক ভাইরাসের মত তারা প্রকৃত ভাইরাসটি কপিগুলোকে পরিবর্তিত করতে পারে অথবা কপিগুলো নিজেরাই পরিবর্তিত হতে পারে। এছাড়াও ভাইরাসসমূহ কোন নেট ওয়ার্ক ফাইল সিস্টেমকে আক্রান্ত করতে পারে, যার ফলে অন্যান্য কম্পিউটার যা ঐ সিস্টেমটি ব্যবহার করে সেগুলো আক্রান্ত হতে পারে। ভাইরাসকে কখনো কম্পিউটার ওয়ার্ম ও ট্রোজান হর্সেস এর সাথে মিলিয়ে ফেলা হয়। ট্রোজান হর্স হল একটি ফাইল যা এক্সিকিউটেড হবার আগ পর্যন্ত ক্ষতিহীন থাকে।

                        এটি কি ভাবে ছড়ায় ?

একটি ভাইরাস এক কম্পিউটার থেকে অপর কম্পিউটারে যেতে পারে কেবলমাত্র যখন আক্রান্ত কম্পিউটারকে স্বাভাবিক কম্পিউটারটির কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। যেমন: কোন ব্যবহারকারী ভাইরাসটিকে একটি নেট ওয়ার্কের মাধ্যমে পাঠাতে পারে বা কোন বহনযোগ্য মাধ্যম যথা ফ্লপি ডিস্ক, সিডি, ইউএসবি ড্রাইভ বা ইণ্টারনেটের মাধ্যমে ছড়াতে পারে।বর্তমানে অনেক পার্সোনাল কম্পিউটার (পিসি) ইণ্টারনেট ও লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্কের সাথে যুক্ত থাকে যা ক্ষতিকর কোড ছড়াতে সাহায্য করে। ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবই-মেইল ও কম্পিউটার ফাইল শেয়ারিং এর মাধ্যমে ভাইরাস সংক্রমন ঘটতে পারে। কিছু ভাইরাসকে তৈরি করা হয় প্রোগ্রাম ধ্বংশ করা, ফাইল মুছে ফেলা বা হার্ড ডিস্ক পূণর্গঠনের মাধ্যমে কম্পিউটারকে ধ্বংশ করার মাধ্যমে। অনেক ভাইরাস কম্পিউটারের সরাসরি কোন ক্ষতি না করলেও নিজেদের অসংখ্য কপি তৈরি করে যা লেখা, ভিডিও বা অডি ও বার্তার মাধ্যমে তাদের উপস্থিতির বহিঃপ্রকাশ ঘটায়। নিরীহ দর্শন এই ভাইরাসগুলোও ব্যবহারকারীর অনেক সমস্যা তৈরি করতে পারে। এগুলো স্বাভাবিক প্রোগ্রামগুলোর প্রয়োজনীয় মেমোরি দখল করে। বেশ কিছু ভাইরাস বাগ তৈরি করে, যার ফলশ্রুতিতে সিস্টেম ক্র্যাশ বা তথ্য হারানোর সম্ভাবনা থাকে।

               ভাইরাস এর প্রভাবে কি কি হতে পারে !!

১।কম্পিউটার ভাইরাস আক্রান্ত হলে পিসি মাঝে মাঝে হ্যাং করতে পারে।

২/কখনও বা রিস্টার্ট নিতে পারে।

৩/আবার হঠাৎ করে অদ্ভুত কোনো মেসেজও আসতে পারে।

৪/ সর্বোপরি পিসি স্লো হয়ে যাবে।

৫/সর্ট-কাট ফোল্ডার তৈরি হবে অনেক।

৬।আপানার সফটওয়্যার চালাতে সমস্যা হতে পারে।

                    এটার থেকে বাচার উপায় !!!

কম্পিউটার ভাইরাস থেকে  বাচতে হলে আপনাকে অনেক গুলো নিয়ম মেনে চলতে হবে

১৷ আনট্রাস্টেড কোন সোর্স থেকে আসা মেইল থেকে কোন ফাইল ডাউন করবেন না৷
২৷ কোন আনট্রাস্টেড ওয়েবসাইট ভিজিট করা বা ডাউন করা বন্ধ রাখুন৷
৩৷ পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার বন্ধ রাখুন৷
৪৷ উইন্ডোজ এক্সপি ইউজ না করাই ভাল ৷
৫। কম্পিউটারে জরুরি ডাটার জন্য কম্পিউটারে এবং অনলাইনে এবং সিডি/ডিভিডি সবসময় ব্যাকআপ রাখুন।
৬।স্প্যাম বা সন্দেহজনক মেইল থেকে কখনোই কোনো অ্যাটাসমেন্ট ডাউনলোড করবেন না।
৭। ক্যাফে বা অন্যের ডিভাইসে ই-মেইলে লগইন করবেন না।
৮। স্প্যাম মেইল খুলবেন না।
১০। ম্যাসেঞ্জারে অপরিচিত/সন্দেহজনক কোনো ফাইল আসলে ডাউনলোড দেবেন না।

১১।ইন্টারনেট থেকে কোন জিনিস ডাউনলোড করলে তা আগে এন্টি-ভাইরাস দিয়ে স্ক্যান করে নিবেন।

১২। আপনার কম্পিউটারে সব সময়  এন্টি-ভাইরাস ব্যাবহার করুন।

ইত্যাদি।

                       Ransomware Virus!!!!

আপনারা হয়তো এখন সবাই এই জানেন সারা দুনিয়া জুড়ে এক যোগে চলছে বড় ধরনের সাইবার হামলা। প্রথমে ৭৪টি দেশের কথা বলা হলেও বিবিসির সর্বশেষ খবরে বলা হয়েছে বিশ্বের ১০০টি  দেশ সাইবার হামলার শিকার হয়েছে। উত্তর আমেরিকা, ইউরোপ থেকে শুরু করে এশিয়া পর্যন্ত অন্তত ১০০টি দেশে এ হামলা করেছেন হ্যাকাররা। এটিই সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে বড় সাইবার হামলা। সম্প্রতি ransomware নামের এক বিশ্ব কুখ্যাত এক পিসি ভাইরাস বাংলাদেশের প্রায় ৩০টিরও বেশি পিসিতে অ্যাটাক করেছে ৷বিস্তারিত পড়ুন এই লিংক এ

এই ছিল আজকে আমাদের পোস্ট,পরবর্তী পোস্ট এ সেরা ১০ এন্টি-ভাইরাস সম্পর্কে থাকবে,আশা করি আমাদের সাথেই থাকবেন।

মন্তব্যসমূহ