শেয়ার

স্মার্টফোনে যতই বিপ্লব ঘটুক না কেন, ট্যাব’র প্রয়োজনীয়তা কিন্তু আগের মতই আছে। অফিসিয়াল মিটিং বা বায়ার হ্যান্ডলিং এর ক্ষেত্রে এখনও ল্যাপটপের পরিবর্তে ট্যাবের বিকল্প নেই। কিন্তু ব্র্যান্ডের ট্যাব গুলোর দাম সাধ্যের বাইরে হওয়ায় সাধারণ ইউজার-রা ট্যাব ক্রয় করতে হিমসিম খান।

ওয়ালটন আপনাদের কথা মাথায় রেখেই মাত্র ৭,৭৯০ টাকায় নিয়ে এসেছে স্বল্পমূল্যের বাজেট বান্ধব ট্যাব Walpad G3.

ডিভাইসটিতে রয়েছে ৮” বিশাল ডিসপ্লে, ১ জিবি র‌্যাম, ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী এবং ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর এবং ২ মেগা পিক্সেল ফ্রন্ট এবং রিয়্যার ক্যামেরা। এছাড়া ব্যাটারী ব্যাকাপ পাবেন ৪০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন।

এক নজরে দেখে নেই Walpad G3’র কনফিগারেশন
                                      স্পেসিফিকেশন
বিবরণ Walpad G3
ডিসপ্লে ৮” ডব্লিউ এক্স জি এ ডিসপ্লে
প্রোটেকশন নেই
রেজুল্যুশন ১২৮০ x ৮০০ পিক্সেল
ও.এস এ্যন্ড্রয়েড ৫.০ ললিপপ
প্রোসেসর ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
জি পি ইউ মালি ৪০০
র‌্যাম  ১ জিবি
রম ৮ জিবি (৬৪ জিবি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে)
ক্যামেরা ২ মেগাপিক্সেল রিয়্যার এবং সেলফি
ব্যাটারি ৪০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন।
দাম ৭,৭৯০ টাকা
Walpad G3 এর সাথে যা পাচ্ছেন
  • চার্জার অ্যাডাপ্টার ও ডাটা কেবল
  • ইয়ারফোন
  • ইউজার ম্যানুয়াল এবং ওয়ারেন্টি কার্ড
অপারেটিং সিস্টেম

স্মার্ট এই ট্যাবটিতে ললিপপ ৫.০ অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে।

বিল্ট কোয়ালিটি

ডিসপ্লে সাইজ বিশালাকৃতির হওয়ায় সেটা ডিভাইসটির বডিতেও ইফেক্ট করেছে। প্লাষ্টিক মেইড ডিভাইসটির ব্যাক পার্ট-টি বেশ বাকানো। ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলে উপরের দিকে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা।কোন ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল ইউজ করা হয়নি বরং ডিসপ্লের মধ্যেই সীমাবদ্ধ করা হয়েছে। ডিভাইসটির ব্যাক প্যানেলে উপরের অংশে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল রিয়্যার ক্যামেরা। ক্যামেরার সাথে কোন ফ্ল্যাশ লাইট ব্যবহার করা হয়নি।ক্যামেরার উপরের দিকের অংশটা রিমুভেবল। এই অংশে মাইক্রো এস ডি কার্ড সহ ‍আলাদা ডুয়াল সিম কার্ড পোর্ট রয়েছে।ট্যাবের উপরের অংশে রয়েছ ৩.৫ মিলিমিটার অডিও এবং মাইক্রো ইউ. এস. বি পোর্ট।ভলিউম রকার্স এবং পাওয়ার বাটন রয়েছে ব্যাকপার্টের উপরের অংশে সাইড প্যানেলের কোল ঘেষে।এছাড়া লাউড স্পিকার রয়েছে ট্যাবের একদম নিচের দিকে।ট্যাবটির দৈর্ঘ্য ২০৭.৭ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ১২৩.৩ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব ৯.৫ মিলিমিটার।

চলুন একটু মিলিয়ে দেখি বর্ণনা গুলো।

ইউজার ইন্টারফেস

ট্যাব হিসেবে ইউজার ইন্টারফেসে খুব বেশি বৈশিষ্ট্য নেই। গুগলের ষ্টক ললিপর আমেজ পাবেন ট্যাব-টিতে। ট্র্যানজিশন বেশ স্মুদ ছিলো।

র‌্যাম এবং রম

 Walpad G3-তে পাবেন ১ জিবি র‌্যাম এবং ৮ জিবি ইন্টারনাল মেমোরী। তবে মেমোরী ৬৪ জিবি পর্যন্ত এক্সপ্যান্ড করার সুবিধা রয়েছে।

সি.পি.ইউ এবং জি.পি.ইউ

Walpad G3 এ রয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর এবং মালি ৪০০ জি.পি.ইউ।

ডিসপ্লে এবং টাচ

Walpad G3 এ রয়েছে ৮” ডব্লিউ.এক্স. জি.এ স্ক্রিন। ডিসপ্লে রেজুল্যুশন হলো ১২৮০ X ৮০০ পিক্সেল। ডিসপ্লেতে ১৬.৭ মিলিয়ন কালার সাপোর্ট করে। এছাড়া  ট্যাব-টিতে ৫ আংগুল পর্যন্ত মাল্টি টাচ সাপোর্ট করে যা খুব-ই পজিটিভ একটা বিষয়।

ক্যামেরা

Walpad G3 এর ফ্রন্ট এবং ব্যাক প্যানেলে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। কোন ফ্ল্যাশ লাইট নেই। তবে ফুল এইচ.ডি ভিডিও প্লে-ব্যাক করা যাবে অনায়েসেই। ক্যামেরা কোয়ালিটি মোটামুটি মানের। রিয়্যার ক্যামেরা দিয়ে তোলা ছবি দেখে নেই।

বেঞ্চমার্ক

Walpad G3 এর এ্যন্টুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর সন্তোষ জনক। ডিভাইসটির এ্যন্টুটু স্কোর এসেছে ২২,১৬০ এবং গ্রাফিক্স নেনামার্ক স্কোর এসেছে ৫৭.৭ এফ.পি.এস। ডিভাইসটির দাম হিসেবে বেঞ্চমার্ক স্কোর সন্তোষ জনক।

কানেক্টিভিটি এবং সেন্সর

Walpad G3 এ যে সকল কানেক্টিভিটি রয়েছে তা হলো: ওয়াই-ফাই, ব্লু-টুথ ভার্সন ৪, মাইক্রো ইউ.এস.বি ভার্সন ২, ও.টি.এ, ও.টি.জি এবং ডব্লিউ ল্যান হটস্পট ইত্যাদি। আর সেন্সর রয়েছে শুধুমাত্র এ্যকসেলোমিটার।

ও টি এ

Walpad G3 আপনারা অনলাইনে আপডেট করতে পারবেন ও.টি.এ (Over The Air) এর মাধ্যমে।

ও টি জি

গেম খেলার জন্য মাউস এবং কিবোর্ড ব্যবহার করতে পারবেন ও টি জি ক্যাবলের মাধ্যমে। এছাড়া পেন ড্রাইভ দিয়ে ডাটা ট্রান্সফারও করতে পারবেন।

গেমিং এক্সপিরিয়েন্স

ডিসপ্লে বড় হওয়াতে গেমিং এক্সপিরিয়েন্স খুব-ই এ্যট্রাকক্টিভ। বিশেষ করে এসফাল্ট ৮, ফিফা ১৪ গেমস গুলো মনে হবে একেবারে জীবন্ত।

ভাল লাগা দিকসমূহ
  • স্বল্প মূল্যে বাজেট বান্ধব ট্যাবলেট
  • যে কোন প্রকার অফিসিয়াল কাজে ব্যবহার করা যাবে।
  • মাইক্রোসফ্ট অফিস ইজিলি হ্যান্ডলিং করা যাবে।
খারাপ দিক
  • ব্যাটারি ব্যাকাপ ৪০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার। অথচ ওয়ালটনের স্মার্টফোন গুলোতেই এর চেয়ে বেশি ব্যাটারি ব্যাকাপ আমরা পেয়েছি।
  • ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল হওয়া দরকার ছিলো।
  • রিয়্যার ক্যামেরায় কোন ফ্ল্যাশ লাইট নেই।
দাম

আগেই বলেছি ডিভাইসটি একেবারে বাজেট বান্ধব। দাম রাখা হয়েছে মাত্র ৭,৭৯০ টাকা।

মন্তব্যসমূহ