শেয়ার

নতুন নতুন স্মার্টফোন রিলিজে ওয়াল্টন এর জুড়ি মেলাভার। ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস থেকে শুরু করে ফিচার ফোন সব ধরনের স্মার্টফোন-ই ওয়াল্টন নিয়মিত ভাবে রিলিজ করে আসছে। তার-ই ধারাবাহিকতায় ওয়াল্টন রিলিজ করলো Primo F সিরিজের ৭ম মোবাইল Primo F7. ১ জিবি র‌্যাম, ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর ৮ জিবি বিল্ট ইন মেমোরী সহ ডিভাইসটির দাম ৫,১৪০ টাকা মাত্র। এছাড়া সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট এবং ব্যাক ক্যামেরা। তাহলে আর কথা বাড়াচ্ছি না, দেখে নেই Primo F7 এর এক ঝলক।

                                  স্পেসিফিকেশন
ডিসপ্লে ৫” ডব্লিউ ভি.জি.এ ডিসপ্লে
প্রোটেকশন নেই
রেজুল্যুশন ৪৮০ x ৮৫৪ পিক্সেল
অপারেটিং সিস্টেম এ্যন্ড্রয়েড ৬.০ মার্শম্যালো
প্রোসেসর ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
জি পি ইউ মালি ৪০০
র‌্যাম ১ জিবি
রম ৮ জিবি (৬৪ জিবি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা যাবে)
ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল রিয়্যার, ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি
ব্যাটারি ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার
দাম ৫,১৪০ টাকা।
Primo F7 কিনলে যে সকল জিনিস ফ্রি পাবেন:
  • চার্জার অ্যাডাপ্টার ও ডাটা ক্যাবল
  • ইয়ারফোন
  • ইউজার ম্যানুয়াল এবং ওয়ারেন্টি কার্ড
  • স্ক্রিন প্রোটেক্টরscreenshot_9
অপারেটিং সিস্টেম

Primo F7 এ রয়েছে বর্তমান সময়ের বহুল প্রচলিত অপারেটিং সিস্টেম এ্যন্ড্রয়েড মার্শম্যালো ৬.০ অপারেটিং সিস্টেম।screenshot_20160101-101209

বিল্ট কোয়ালিটি

প্রথম থেকেই আপনারা সাদা, কালো, সোনালী এবং ধূসর এই ৪টি রঙে Primo F7 মার্কেটে পাবেন।screenshot_14Primo F7 ডিভাইসটি প্লাষ্টিক মেইড। তবে এর ব্যাকপার্ট’র কারণে ডিভাইসটির লুক বহুলাংশে বেরে গেছে। ডিভাইসটির ব্যাকপার্ট-টি জিগজ্যাগ টেক্সচার যুক্ত। অনেকটা টাইলস’র ডিজাইনের মত। দেখলেই চোখে লাগে। এছাড়া ব্যাকপার্টটি বেশ কার্ভ রাখা হয়েছে হ্যান্ড গ্রিপ ঠিক রাখার জন্য। ডিভাইসটির ফ্রন্ট প্যানেলে রয়েছে ৫” ডব্লিউ ভি জি এ স্ক্রিন। আরো রয়েছে সেলফি তোলার জন্য ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর। আর ডিসপ্লের নিচের অংশে রয়েছে ৩টি ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল।screenshot_6screenshot_3Primo F7’র ডান পাশে রয়েছে  পাওয়ার বাটন এবং ভলিউম রকার্স বাটন। এছাড়া মাইক্রো ইউ এস বি চার্জিং এবং ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট পাবেন ডিভাইসের একদম উপরের অংশে।screenshot_7Primo F7’র ব্যাক প্যানেলের উপরের দিকে বাম দিক বরাবর রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরার গঠন-টা অনেকটা Primo D8 এর মত।screenshot_2রিমুভেবল ব্যাকপার্ট খুললে পাবেন ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারি।screenshot_8ডিভাইসটির দৈর্ঘ্য ১৪৬.৩ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ৭৩.৭ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব ৯.৮ মিলিমিটার। আর ব্যাটারী সহ ডিভাইসটির ওজন  ১২০ গ্রাম মাত্র।screenshot_6চলুন এবার আমরা ডিভাইসটির ফিজিক্যাল গ্রাফ দেখে নেই।screenshot_12আর ওভারঅল সব কিছু দেখে ডিভাইসটিকে চমকপ্রদ-ই লেগেছে আমার কাছে।

ইউজার ইন্টারফেস

সম্পূর্ণ ষ্টক ললিপপের ইউজার ইন্টারফেস ব্যবহার করা হয়েছে ডিভাইসটিতে। আলাদা থিম এবং ওয়ালপেপার চুজ করতে পারবেন। আরো রয়েছে এ্যপ ড্রয়ার যা আপনাকে হোম স্ক্রিন এবং এ্যপ ড্রয়ার থেকে আলাদা এবং স্বাধীন ভাবে এ্যপ চুজ করার সুবিধা দেবে। আরো রয়েছে ফোন এ্যসিসট্যান্ট যা আমার রিভিউ এর স্পেশাল সেকশনে আলোচনা করা হয়েছে।

র‌্যাম এবং রম

Primo F7 এ রয়েছে ১ গিগাবাইট র‌্যাম এবং ৮ গিগাবাইট বিল্ট ইন মেমোরী। এছাড়া অতিরিক্ত ৬৪ জিবি  পর্যন্ত মেমোরী কার্ড ব্যবহার করার সুবিধাও পাচ্ছেন।screenshot_4

সি.পি.ইউ এবং জি.পি.ইউ

Primo F7 এ রয়েছে ১.৩ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রোসেসর। এছাড়া জি পি ইউ থাকছে  মালি ৪০০

ডিসপ্লে এবং টাচ

Primo F7’র   ডিসপ্লেতে রয়েছে ৫” এফ ডব্লিউ ভি জি এ স্ক্রিন। যার স্ক্রিন রেজুল্যুশন ৪৮০ x ৮৫৪ পিক্সেল। ডিসপ্লেতে রয়েছে মিরাভিশন টেকনোলজী। যার মাধ্যমে ডিসপ্লে’র কনট্র্যাস্ট চুজ করে নিতে পারবেন। বিশেষ করে নরমাল ইউজ এবং মুভি দেখার জন্য এই টেকনোলজি বেষ্ট। আর ডাইনামিক কনট্রাষ্ট চুজ করলে তো কালার হবে আরো জীবন্ত এবং লাইভলি।screenshot_4screenshot_5

ক্যামেরা

Primo F7-এ ব্যবহার করা হয়েছে এল.ই.ডি ফ্ল্যাশ সহ ৫  মেগাপিক্সেল রিয়্যার ক্যামেরা। এছাড়া সেলফি তোলার জন্যও রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। রিয়্যার ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেল ফরম্যাটে ভিডিও+প্লে-ব্যাক করা যাবে। মজার ব্যাপার হলো সামনে এবং পেছনে উভয় সেকশনেই ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। ক্যামেরা কোয়ালিটি যথেষ্ট্য ভালো। বিশেষ করে সেলফি আমার কাছে বেশি ভালো লেগেছে।

রিয়্যার ক্যামেরা স্যাম্পল:screenshot_3 screenshot_5সেলফি:screenshot_2 screenshot_1

বেঞ্চমার্ক

Primo F7’র এ্যনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর এসেছে ২৩,৬১৩ এবং নেনামার্ক স্কোর এসেছে ৬১.৪ এফ পি এস। এছাড়া গিকবেঞ্চ টেষ্ট করেছি আমরা। চলুন, রেজাল্ট গুলো দেখে নেই।pixlr

কানেক্টিভিটি এবং সেন্সর

Primo F7 এ যে সকল কানেক্টিভিটি দেয়া হয়েছে তা হলো: ওয়াই-ফাই, ব্লু-টুথ ভার্সন ৪,  মাইক্রো ইউ.এস.বি, ও.টি.এ,  ডব্লিউ ল্যান হটস্পট ইত্যাদি।screenshot_9আর সেন্সর গুলোর মধ্যে রয়েছে এ্যকসেলোমিটার, এবং  প্রক্সিমিটি সেন্সর।screenshot_6

স্পেশাল ফিচার

পাওয়ার ম্যানেজার

পাওয়ার ম্যানেজার এমন একটি  ‍সুবিধা যা মোবাইলের টাফ ইউজের পরেও বিশেষ কিছু সুবিধা দেবে। বিশেষ করে চার্জ যখন থাকবে খুব-ই লো তখন পাওয়ার ম্যানেজার অপশন চালু করে ব্যাটারী ব্যাকাপ বাড়ানো যাবে বহুগন। আর এখান থেকে আপনি পাওয়ার সেভিং অপশন থেকে শুরু করে এক্সট্রিম পাওয়ার সেভিং মোডও অন করতে পারবেন। তবে আমি প্রেফারেন্স দিবো এক্সট্রিম পাওয়ার সেভিং মোড অন রাখতে। তবে এই মোড অন করলে আপনাকে শুধুমাত্র ভয়েস কল এবং ম্যাসেজিং এর মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকতে হবে। ইন্টারব্রাউজিং থেকে শুরু করে কোন কিছুই করতে পারবেন না।screenshot_10এ্যসিসট্যান্ট

এটা এমন একটা সুবিধা যার মাধ্যমে আপনি ফোনের প্রায় প্রতিটা সেক্টরেই বিচরণ করতে পারবেন। বলতে পারেন এটা ফোনের একনায়কতন্ত্র সিস্টেম। পাওয়ার সিস্টেম, ডাটা ম্যানেজমেন্ট, ব্লক লিস্ট, বুট অপটিমাইজার থেকে শুরু করে আরো অনেক কিছু পাবেন এখানে।assistant

ওটিএ

ডিভাইসের সকল আপডেট ও.টি.এ’র মাধ্যমে অনলাইনে করা যাবে।

গেমিং এক্সপিরিয়েন্স

Primo F7 এ এ্যসফাল্ট ৮ থেকে শুরু করে ফিফা ১৪, ১৫, মডার্ন কম্ব্যাট গেইমস গুলো ইজিলি খেলতে পারবেন। ল্যাগিং পাইনি একদম। তবে ব্যাকগ্রাউন্ডে এ্যপস থাকলে হাই-এন্ড গেমস গুলো ল্যাগ করতে পারে।

দূর্বলতা

ব্যাটারি ব্যাকাপ আমার কাছে একটু কম লেগেছে। এছাড়া ডিসপ্লে-তে স্ক্র্যাচ পরার সম্ভাবনা প্রবল। সেক্ষেত্রে আপনারা টেম্পারড গ্লাস ব্যবহার করতে পারেন।

ব্যাটারি

Primo F7’র ব্যাটারি পাচ্ছেন রিমুভেবল ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারি।

মূল্য

ডিভাইসটির মূল্য রাখা হয়েছে ৫,১৪০ টাকা।

সিদ্ধান্ত

স্মার্টফোন কেনার জন্য এখন খুব বেশি বাজেটের দরকার হয়না। রিজনেবল প্রাইজ এবং পছন্দসই ডিভাইস গুলো এখন আপনার হাতের নাগালেই। একটু খুজে দেখুন, হয়তোবা Primo F7’ই আপনি খুঁজছেন।

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ