শেয়ার

galaxy-note-7-explosion

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট-৭ ব্যবহার না করতে স্যামসাং কোম্পানির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। এ সিরিজের ফোনটিতে বারবার আগুন লেগে যাওয়ায় সোমবার এ ঘোষণা দেয়া হয়। এদিকে সেটটির উৎপাদন সাময়িকভাবে বন্ধ রেখেছে কোম্পানিটি।

স্যামসাং এর পক্ষ থেকে বলা হয়, সব বিক্রেতাকে গ্যালাক্সি নোট-৭ বিক্রি ও বিনিময় বন্ধ করে দেবার ঘোষণা দেয়া হবে। গ্রাহকদেরও অনুরোধ করা হলো তারা যেন ফোনসেটটি ব্যবহার বন্ধ করে দেন।

নোট-৭ এ আগুন ধরে যাবার অভিযোগে গেল সেপ্টেম্বরে ২৫ লাখ ফোনসেট গ্রাহকদের কাছ থেকে ফেরত নেয়া হয়। এরপর পরিবর্তন করে ফোনগুলো ফেরত দেয় দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠানটি। গ্রাহকদের নিশ্চিত করা হয় প্রতিটি ফোনসেটই এখন নিরাপদ।

এর কয়েকদিনের মাথায় যুক্তরাষ্ট্রের কেনটাকিতে এক ব্যক্তি আবরো অভিযোগ করেন, পাল্টিয়ে নেয়া গ্যালাক্সি নোট-৭ ফোনটি এক রাতে তার বেডরুমে ধোয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। তিনি ঘুম থেকে জেগে যান। এর কয়েকদিন আগে যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ একটি ফ্লাইটে এমনই একটি ডিভাইস থেকে ধোয়া ছড়াতে থাকে কেবিনে।

নতুন করে এর একটি ডিভাইস পরীক্ষা করার সময়ও তাতে আগুন ধরে যায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে পণ্যটি ব্যবহার ও উৎপাদন বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় স্যামসাং। গ্যালাক্সি নোট সেভেন ব্যবহারকারী সকলকে সেটটির ব্যবহার তড়িৎ বন্ধ করে, স্যামসাং এর কাছ থেকে মূল্য ফেরত নেবার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। অথবা চাইলে এই ব্রান্ডেরই অন্যকোন ফোন বদলে নিতে পারবেন তারা।

স্যামসাং বিশ্বের সর্ববৃহৎ মোবাইল সেট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। গত মাস থেকে ব্যাটারির সমস্যা নিয়ে অভিযোগ ওঠার পর থেকে, দক্ষিণ কোরিয়ার পুঁজি বাজারে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারের মূল্য পাঁচ শতাংশের বেশি কমে গেছে। আর এর ফলে মূলত লাভবান হচ্ছে প্রতিপক্ষ মোবাইল ফোন প্রতিষ্ঠান অ্যাপল।

মন্তব্যসমূহ