শেয়ার

আপনাদের সামনে আবারো আসলাম ওয়াল্টন এর নতুন একটি ডিভাইস Primo E7s’র রিভিউ নিয়ে। একেবারে হাতের নাগালে দাম। আর কনফিগারেশনও দাম অনুযায়ী পারফেক্ট। কোয়াডকোর প্রোসেসর, ১ জিবি র‌্যাম, ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার ব্যাটারি, ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরার জন্য ডিভাইসটি বেশ নজর কাড়ছে সবার। ডিভাইসটির মার্কেট মূল্য ধরা হয়েছে ৪,১৯০ টাকা। অন্য কোন কোম্পানীতে  এত কম দামে ১ জিবি র‌্যাম আর কোয়াডকোর প্রোসেসর যুক্ত মোবাইল আছে কিনা সেটা নিয়ে গবেষণা করতে হবে। অথচ একটা সময়ে আমরা ১০ হাজার টাকার নিচে ১ জিবি র‌্যামের মোবাইলও কিনতে পারতাম না। ওয়াল্টন এই ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রশংসার দাবিদার।   দেখে নেই Primo E7s এর এক ঝলক।

ডিসপ্লে ৪.৫” এফ ডব্লিউ ভি জি এ স্ক্রিন
রেজুলুশ্যন ৮৫৪ X ৪৮০ পিক্সেল
প্রোটেকশন নেই
ও.এস ললিপপ ৫.০
র‌্যাম ১ জিবি
রম ৮ জিবি ( ৩২ জিবি পর্যন্ত বারানো যাবো)
ক্যামেরা ৫ মেগাপিক্সেল রিয়্যার,  ভি জি এ ফ্রন্ট
প্রোসেসর ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াডকোর প্রোসেসর
জি পি ইউ মালি ৪০০
ব্যাটারি ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার
দাম ৪১৯০ টাকা।
ডিভাইসটির সাথে রয়েছে
  • চার্জার অ্যাডাপ্টার ও ডাটা ক্যাবল
  • ইয়ারফোন
  • ইউজার ম্যানুয়াল এবং ওয়ারেন্টি কার্ড
  • স্ক্রিন পোটেক্টর
অপারেটিং সিস্টেম

Primo E7s এ এ্যন্ড্রয়েড ললিপপ ৫.০ অপারেটিং সিস্টেম দেয়া হয়েছে।os

বিল্ট কোয়ালিটি

প্রথমেই বলে রাখি, ডিভাইসটি আপনারা কালো, সাদা এবং সোনালী এই ৩টি রঙে মার্কেটে পাবেন।screenshot_1

ডিভাইসটি প্লাষ্টিক মেইড হলেও ডিজাইনের দিক দিয়ে ওয়াল্টন কোন কমতি রাখেনি। ডিভাইসটির ব্যাকপার্ট-টা কার্ভ রাখা হয়েছে। ব্যাক কভার কার্ভ করার মেইন রিজন হলো ভালো হ্যান্ড গ্রিপ। এছাড়া ডিভাইসটির ২ পাশে প্লাষ্টিকের গ্রিপ রাখা হয়েছে।

৪.৫” ডিসপ্লে যুক্ত মোবাইলের উপরের অংশে রয়েছে ভি জি ক্যামেরা এবং প্রক্সিমিটি সেন্সর।screenshot_12এছাড়া ডিসপ্লে’র ঠিক নিচের দিকেই রয়েছে ৩টি ক্যাপাসিটিভ টাচ প্যানেল। ভলিউম রকার্স এবং পাওয়ার বাটন রয়েছে ফ্রেমের ডান পাশের উপরের অংশে।screenshot_3

আর মাইক্রো ইউ এস বি চার্জিং এবং ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্ট রয়েছে একদম উপরের দিকে।screenshot_4

ডিভাইসটির দৈর্ঘ্য ১৩৫ মিলিমিটার, প্রস্থ্য ৬৬ মিলিমিটার এবং পুরুত্ব ৯.৫ মিলিমিটার। ব্যাটারি সহ Primo E7s এর ওজন মাত্র ১১৬ গ্রাম।screenshot_7

রিমুভেবল ব্যাকপার্টের উপরের দিকে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরার অংশ টুকু রাউন্ডেড বাম্প রাখা হয়েছে। ফলে ক্যামেরায় স্ক্র্যাচ পরার সম্ভাবনা খুব-ই কম।screenshot_5লাউড স্পিকার রয়েছে ঠিক ব্যাকপার্টের নিচের দিকে।screenshot_7ব্যাকপার্ট খুললে ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারি সহ রয়েছে ২টি ৩জি সিম কার্ড এবং মেমোরী কার্ড স্লট।screenshot_8

ইউজার ইন্টারফেস

ওয়াল্টন এর লো বাজেটের ফোন গুলোতে সাধারণত গুগলের ষ্টক ফার্মওয়্যার দেয়া থাকে। যেমনটা আমরা আগে দেখেছি EF4, NH এ। ঠিক তেমনি Primo E7s ডিভাইসটিতে ষ্টক ললিপপ ফার্মওয়্যার দেয়া আছে।

ডিসপ্লে আইকন, নোটিফিকেশন বার, সেটিংস থেকে শুরু করে সকল কিছুতেই পাবেন গুগলের ষ্টক ললিপপের টেষ্ট। এছাড়া থিম এবং আলাদা ওয়াল পেপার চুজ করতে পারবেন। Primo E7s’র ট্র্যানজিশন যথেষ্ট স্মুদ এবং ল্যাগিং ফ্রি।

র‌্যাম এবং রম

Primo E7s এ রয়েছে ১ জিবি র‌্যাম এবং ৮ জিবি রম। বলা বাহুল্য ৮ জিবি রম আপনারা ইউনিফাইড স্টোরেজ হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। মানে হলো ডিভাইসে যে কোন কিছু ইনষ্টল করতে পারবেন। স্টোরেজ ইনসাফিসিয়েন্ট দেখাবেনা। এছাড়া অতিরিক্ত ৩২ জিবি মেমোরী কার্ড ব্যবহার করার সুবিধাও আপনারা পাচ্ছেন।ram

পি.ইউ এবং জি.পি.ইউ

Primo E7s এ রয়েছে ১.২ গিগাহার্টজ কোয়াড কোর প্রোসেসর। এছাড়া জি পি ইউ থাকছে  মালি ৪০০। এইচ ডি গেইম খেলার জন্য যথেষ্ট গতি-ই পাবেন এই ডিভাইসে।cpu

ডিসপ্লে এবং টাচ

Primo E7s’র   ডিসপ্লেতে রয়েছে ৪.৫” এফ.ডব্লিউ.ভি.জি.এ স্ক্রিন। ডিভাইসটির রেজুল্যুশন ৮৫৪ X ৪৮০ পিক্সেল। ডিসপ্লে-তে কোন প্রোটেকশন না থাকায় অবশ্যই  স্ক্রিন প্রোটেক্টর ব্যবহার করতে হবে যাতে করে ডিসপ্লেতে কোন স্ক্র্যাচ না লাগে। ২ আঙ্গুল পর্যন্ত মাল্টি টাচ সাপোর্ট করে ডিভাইসটিতে।finger

ক্যামেরা

E7s এ ৫ মেগাপিক্সেল বি এস আই রিয়্যার ক্যামেরা রযেছে। সেলফি লাভার-রা এই ডিভাইসের ফ্রন্ট ক্যামেরা পছন্দ নাও করতে পারেন। সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ভি জি এ ক্যামেরা। প্লাস পয়েন্ট হলো  ব্যাক ক্যামেরা দিয়ে ৭২০ পিক্সেল-এ ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন। চলুন ডিভাইস দিয়ে তোলা কয়েকটা পিক দেখে নেই।

screenshot_1 screenshot_2 screenshot_3

বেঞ্চমার্ক

Primo E7s’র এ্যনটুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর এসেছে ২০,৮৭৮।  এছাড়া ডিভাইসটির নেনামার্ক স্কোর আমরা পেয়েছি ৫১.৯। আমরা গিকবেঞ্চ টেষ্টও করে দেখেছি। চলুন রেজাল্ট গুলো দেখে নেই।pixlr_20160928222629725

কানেক্টিভিটি এবং সেন্সর

ডিভাইস গুলোতে যে সকল কানিক্টিভিটি রয়েছে তা হলো: ওয়াই-ফাই, ব্লু-টুথ ভার্সন ৪,  মাইক্রো ইউ.এস.বি, ও.টি.এ,  ডব্লিউ ল্যান হটস্পট ইত্যাদি। আর যে সকল সেন্সর রয়েছে তা হলো: এ্যকসেলোমিটার, লাইট, প্রক্সিমিটি ইত্যাদি।sensor

ওটিএ

ডিভাইসের সকল আপডেট ও.টি.এ’র মাধ্যমে অনলাইনেই করতে পারবেন।screenshot_6

গেমিং এক্সপিরিয়েন্স

সাবওয়ে সার্ফার এর সকল ভার্সন, রিপটাইড জিপি, এসফাল্ট ৮ গেমস গুলো ইজিলি খেলতে পেরেছি। প্রথমে ভেবেছিলাম এসফাল্ট ৮ ল্যাগ করবে। কিন্তু খুবই স্মুদলি এসফাল্ট ৮ খেলতে পেরেছি।

ব্যাটারি

Primo E7s এ রয়েছে রিমুভেবল ২০০০ মিলি এ্যম্পিয়ার লি-আয়ন ব্যাটারি।

মূল্য

ডিভাইসটির মূল্য রাখা হয়েছে ৪,১৯০ টাকা।

সিদ্ধান্ত

আমরা অনেকেই আছি যারা বাজেটের অভাবে স্মার্টফোন কিনতে পারিনা। কিন্তু ৪,১৯০ টাকা দিয়ে Primo E7s আমাদের স্বপ্নকে অনেকটাই পূরণ করতে সক্ষম।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্যসমূহ