শেয়ার
  • Grand Theft Auto: Liberty City Stories

হ্যালো এন্ড্রয়েড ফ্যানস 😀 সরি গেমিং ফ্যানস :p আজকের পোস্টটা স্পেশ্যালি গেমারদের জন্য। আজ আপনাদের জন্য থাকছে Grand Theft Auto অথবা যাকে আমরা “GTA” নামে চিনি এই সিরিজের নতুন একটি গেম রিভিউ!!! grand theft auto সিরিজের এই পর্বটির নাম liberty City Stories 😀 আসলে গেমটিকে নতুন বললে ভুল হবে। গেমটি আগে ios store এ ছিলো,তার ও আগে psp এর জন্য রিলিজ হয়েছিলো। এখন প্লেস্টোরে ও রিলিজ হয়েছে এন্ড্রয়েড এর জন্য 😀 যদিও প্লেস্টোর থেকে গেমটি ডাউনলোড করতে হলে আপনাকে ৩.99  ডলার গুনতে হবে :p তবে আমি গেমটি ফ্রি ডাউনলোড এর লিনক দিয়ে দিব 🙂

Screenshot_20160215-165929

Grand Theft Auto : Liberty City Stories/ gta:lcs তে আপনাকে টনি চরিত্রে খেলতে হবে 🙂 জ্বী সেই পুরনো টনি !!  চিনেছেন নিশ্চই 😀 আসলে liberty city stories পর্বটি grand theft auto 3/vice city পর্বের মত।একদম একই ধরনের স্টোরি।  গেমের শুরুতে দেখা যায় টনি বেশ কিছুদিন গা ঢাকা দিয়ে থাকার পর আবার ফিরে আসে তার শহরে। তার liberty city শহরে সেই leone ফ্যামিলিকে সাহায্য করতে।  স্টোরি লাইন বেশ ভালো। মোটামুটি স্টেপ বাই স্টেপ আগানো যায়। কোনো মিশনে আটকা পরলে অল্টারনেটিব থাকে।  গ্রাফিক্স ও তুলনামূলক ভাবে ভালো। আমার Oneplus one ডিভাইস এ ফুল গ্রাফিক্স এ প্রায় ২৭-৩৭ fps পেয়েছি। তবে ফ্রেম ড্রপ ছিলো অনেক :/ মোটামোটি ২ জিবি র‍্যাম এবং ভালো মানের চিপসেট যুক্ত ফোন এ একদম স্মুথ চলার কথা গেমটি। ১ জিবি র‍্যাম এও চলবে। আমি এন্ড্রয়েড মার্সমেলো তে খেলেছি গেমটা। ললিপপ এও চলবে। grand theft auto :lcs  গেমের OBB ফাইল সাইজ প্রায় ১.৯ জিবি এবং এপিকে সাইজ ৫০ এম্বি । তবে ডাউনলোড করতে হবে মাত্র ৯৯১ এম্বি ।

Screenshot_20160215-170156

চলুন এবার ইন গেইম ডিটেইলস এ যাই 🙂 পার্সোনালি বলতে গেলে প্রথমে আমার কাছে একদম ফালতু লেগেছে গেমটি। কিন্তু কিছুক্ষন খেলার পর বেশ এডিক্টিভ হয়ে যায় ব্যাপারটা ।  মিশন গুলো একটু চ্যালেঞ্জিং হচ্ছিলো । বিশেষ করে টনির মায়ের দেওয়া মিশন গুলো একটু আলাদা হওয়ায় কেমন যেন একটা রহস্য রহস্য লাগছিল । তারপর gta এর সেই চিরচেনা পিম্প মিশন, হায়ারড এসাসিনেশন, স্ট্রিট রেস মিশন গুলো খেললাম । তবে ডিসপ্লের টাচ কীস গুলো দিয়ে গেমটা খেলা বেশ কঠিন। তাই আপনি চাইলে কন্ট্রোলার ব্যাবহার করতে পারবেন। গেমটি কন্ট্রোলার সাপোর্টেড 🙂

Screenshot_20160215-023609

গেমের ম্যাপ বেশ বড়। ৩ টি মূল পার্ট এ ডিভাইড করা। আমি এখনো প্রথম পার্ট এ আছি এতক্ষন খেলে !!  বোঝাই যাচ্ছে বেশ বড় গেমপ্লে এর 🙂 প্লেয়ার কন্ট্রোলিং এই ধরনের ওপেন ওয়ার্ল্ড গেম এর বড় বিষয় । আপনি যদি কমফোর্টেবল ভাবে নিজের প্লেয়ারকে হ্যান্ডেল ই না করতে পারেন তাহলে খেলবেন ক্যান !!  এ ব্যাপারে রক্সটার গেম বেশ ভালো কাজ দেখিয়েছে । তবে হা ডিসপ্লে কন্ট্রোল একটু কঠিন।  হাটার সময় গেম স্ক্রিন এ পাবেন…

# রোটেটেবল মিনি ম্যাপ

# ওয়েপন সিলেকশনার উইন্ডো

# মুভমেন্ট স্টিক

# রান / জাম্প বাটন

# ম্যানুয়াল শুট বাটন

# অটো শুট বাটন

# সেলফোন বাটন

যখন গাড়ি/বাইক চালাবেন তখন পাবেন…

* এক্কেলেরেটর বাটন

* ব্রেক বাটন

* স্লাইড বাটন

* সাইড ফায়ার বাটন

* হর্ন বাটন

* ক্যামেরা এংগেল চেঞ্জ বাটন

* ফ্রন্ট শুটিং বাটন (শুধুমাত্র বাইক এর ক্ষেত্রে)

* এবং অবশ্যই কারজ্যাক বাটন :p

Screenshot_20160215-022030এগুলো ছিল মোটামুটি আকারে ইন্টারফেস / মেইনফ্রেম লাইনাপ 🙂 এবার আরো গভীরে চলে যাই। গেইমে আমি এইই পর্যন্ত পেয়েছি বেসবল ব্যাট, চাপাতি,ছুড়ি, হ্যান্ডগান, শটগান ও মিনি এসএমজি, ইউজিআই 🙂 ওয়েপন হিটপয়েন্ট বেশ ব্যালেন্সড। তবে  যেহেতু মোবাইল গেম তাই অনেক ক্ষেত্রেই শুটিং এর সময় কিছু সমস্যার মুখে পরবেন । গেমে সীমিত মডেলের গাড়ি আছে । আমি যেহেতু এখনো শুরুর দিকে আছি তাই হয়ত সব গাড়ি দেখিনি। ভালো গাড়ির মদ্ধ্যে আছে কেবলমাত্র leon’s sentinal & stallion। বাইক মাত্র ৪ মডেলের দেখেছি।  ৪ টাই ভালো। বাইক কন্ট্রোলিং অওসাম লেগেছে । কোনো অভিযোগ নেই এ নিয়ে । গাড়ি কন্ট্রোলিং ও ভালো। গাড়ি টার্নিং এর ক্ষেত্রে এনালগ, বাটন্স, সোয়াইপ এর মদ্ধ্যে বাটন্স ই বেস্ট। এখনো পানি দেখিনি তাই ওয়াটার ভেহিকল আছে কিনা বলতে পারলাম নাহ :p আর আগের মতই টনি পানিতে সাতার কাটতে পারে নাহ।

Screenshot_20160215-023150
Screenshot_20160215-165850

এবার গেমের ভালো দিক ও খারাপ দিক গুলো দেখা যাক..

Good Sides Of Grand Theft Auto:lcs

  • ছিমছাম স্টোরি লাইন, নগ্নতা কম, ওয়েল প্ল্যান্ড গেমপ্লে।
  • প্লেয়ার কন্ট্রোল ভালো, গাড়ি ও বাইক চালানো ইজি।
  • অফলাইন গেম। একবার ডাউনলোড দিয়ে আর চিন্তা নেই।
  • গ্রাফিক্স যথেস্ট ভালো, যদিও অপ্টিমাইজেশন এর ব্যাপারে বলতে পারলাম নাহ।
  • ওয়েল প্ল্যান্ড মিশনস। যখন ই মনে হবে এই মিশনটা পারবেন না তখন অন্য একটি অল্টারনেটিভ পাবেন। তবে কিছু কিছু পয়েন্টে এ নিয়ে সমস্যায় পরতে হয়।
  • নরলাম মুড এ যা কেউ সাচ্ছন্দে খেলতে পারবে। বেশি কঠিন না।
  • ওভারল gta:vc & gta : sa থেকে ভালো লাগসে :p
  • গেম সেভ হয় প্রতি মিশন শেষ হলেই। ম্যানুয়ালি ও সেভ করা যায় টনির এপার্টমেন্ট এ গিয়ে

Bad Sides Of Grand Theft Auto:lcs…

  • অনেক খুজেও কোনো প্রোটেকশন/বুলেট প্রুফ জ্যাকেট পেলাম নাহ। তাই শুটিং মিশন গুলো হার্ড।
  • পুলিশ এর ওয়ান্টেড লেভেল থাকার পরেও পুলিশের চোখের সামনে দিয়ে পেইন্ট জব এ ঢুকে গাড়ি পেইন্ট করে বাচা যায় + ওয়ান্টেড লেভেল কমে যায় । দিস ইজ ইডিওটিক।
  • গাড়ি চালানোর সময় পিছনে দেখার সহজ কোনো উপায় খুজে পেলাম নাহ।
  • গোলাগুলির ইন্টারফেজ সুবিধার না। শুটিং এর সময় ক্যামেরা রোটেশন তেমন হেল্প করে না। কিছু পয়েন্ট থেকে এনিমি আপনাকে মারতে পারবে কিন্তু আপনি পারবেন নাহ।
  • প্রায় সব মিশন এই একা কাজ করতে হয়। নো বাডিস, নো হোমিস :/
  • মিনি ম্যাপ টা একটু বেশি ছোটো লাগে।
  • খাবার খেতে হয় নাহ, এক্সট্রা মিশন কম, প্রায় gta:vc এর জমজ ভাই।

Screenshot_20160215-023549

এগুলোই ছিলো গেম সম্পর্কে বলার মত। আসলে gta:lcs একটি ম্যাসিভ এন্ড্রয়েড গেম রিলিজ। ডেভেলোপাররা বেশ সফল বলা যায়। ওভারওল গেমটা বেশ ভালো লেগেছে । ইনশা-আল্লাহ গেম ওভার করে ছাড়বো। আজ এটুকুই। রিভিউ কেমন লাগলো জানাতে ভুলবেন নাহ। কোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট বিলো। আল্লাহ হাফেজ

গেম ডাউনলোড লিনক – click here to download  (991 mb)

ডাউনলোড করে এপিকে ফাইলটি ইন্সটল করুন এবং obb ফাইল storage/android/obb তে পেস্ট করুন । ধন্যবাদ 🙂

মন্তব্যসমূহ