শেয়ার

Walpad C [Exclusive]

Walpad C, এমন একটি নাম যা ট্যাবের জগতে বিপ্লব ঘটাতে নিয়ে আসলো Walton Company. তারা নিয়ে আসলো বাজারের সবচেয়ে কম দামী ট্যাব, Walpad C. বলতে গেলে সকল শ্রেনীর কথা মাথায় রেখেই Walton এর যুগান্তকারী পদক্ষেপ। বিশেষ করা যারা নিম্নমধ্যবিত্ত আর যারা বাজেটের অভাবে ট্যাব কিনতে পারছেন না, তাদের জন্য Walpad C হবে Best choice. তবে তার আগে চলুন দেখে নেই কি কি রয়েছে আপনার জন্য এই ট্যাবে:

** 1.3 GHz Quad Core Processor
** Ram 1 GB
** Rom 8 GB
** Mali 400 GPU
** OS android 4.4.2
** 7″ Wsvga Screen
** OTA Enabled
** OTG
** 3.2 MP camera
** 2850 mAh Battery

WALPAD C specs

আপনারা এই ট্যাবটির সাথে যা যা পাচ্ছেন তা হলো:

১. একটি চার্জার এডাপ্টার ও ইউএসবি কেবল
২. এক্সট্রা স্ক্রিন প্রটেক্টর
৩. রিমুভেবল ব্যাটারি
৪. ইয়ারফোন
৫. ইউজার ম্যানুয়াল ও ওয়ারেন্টি কার্ড

৬. OTG Cable.

Screenshot_6

অপারেটিং সিস্টেমঃ

ট্যাবটি-তে আপনারা প্রাথমিক পর্যায়ে ৪.৪.২ কিটক্যাট ব্যবহার করা হয়েছে। সর্বত্র এখন Lollipop এর জয়জয়কার। কিন্তু আপনারা প্রথম দিকে OS হিসেবে পাবেন Android Kitkat. তবে চিন্তার কোন কারণ নেই। ওয়াল্টন এর ওটিএ আপডেট তো আছেই। আশা করা যাচ্ছে কিছুদিনের মধ্যেই ফোনটি ললিপপ আপডেট পাবে। 

Screenshot_2015-01-01-10-26-01

Display & Touch

এই ট্যাবে ব্যবহার হয়েছে 7” WSVGA স্ক্রিন। যার স্ক্রিন প্যারামিটার হলো 1024 X 600 Pixels, which supports 16.7 M Colors. Display-তে কোন প্রকার প্রটেকশন দেয়া নেই। কাজেই ট্যাবের স্ক্রিন প্রোটেকশনের জন্য আপনাকে অতিরিক্তি একটা স্ক্রিন প্রোটেকটর ব্যবহার করতে হবে। আর তা না হলে আপনার ট্যাবের ডিসপ্লে অতিরিক্ত রাফ ইউজে স্ক্র্যাচ পরতে পারে।

Screenshot_4

এছাড়া এই ট্যাবে আপনি সর্বোচ্চ ৫ আঙ্গুল টাচ রেসপন্স পাবেন।

Screenshot_2015-01-01-00-51-31

 Built Quality and Design

ট্যাবটির ডিজাইন সাধারণত বাজারে প্রচলিত ট্যাবের মতই। তবে বলতে পারি ট্যাবের সাইজ নিয়ে নিশ্চয়-ই কারো কোন প্রকার সমস্যা হবার কথা নয়। ট্যাবটি’র Design Simple but the best. কালো রঙের এই ট্যাবটির ডান পাশের উপরের দিকে রয়েছে Power/Sleep-awake বাটন, আর তার ঠিক নিচের রয়েছে ভলিউম রকার বাটন। আর Power বাটনের কিছুটা উপরের দিকে রয়েছে Micro SD Card Slot.

Screenshot_1

মোবাইলের পেছনের দিকে উপরের অংশে রয়েছে ৩.২ মেগা পিক্সেল ক্যামেরা এবং ফ্ল্যাশ। আর ট্যাবটির ঠিক উপরের দিকেই রয়েছে USB Charger এবং 3.5 MM Audio Port.

Screenshodddt_2

এছাড়া ট্যাবটির পেছনের দিকে একদম নিচে ছোট্ট একটি প্যানেল রয়েছে সেখানে ২টা সিম কার্ড এবং Reset Option রয়েছে।

Screenshot_5

ট্যাবটির দৈঘ্য 189.5 MM, প্রস্থ 108.2 MM আর এই ট্যাবের পুরুত্ব মাত্র 9.0 MM.

2850 mAh ব্যাটারি যুক্ত এই ট্যাবের weight ২৬৫ গ্রাম।

Screenshot_5

চলুন, এবার দেখে নেই এই ট্যাব-কে বিভিন্ন ভঙ্গিতে দেখে নেই।

Screenshot_6_2

Screenshot_4

Screenshot_3

Screenshot_2

Ram & ROM:

আপনাদের জন্য এই ট্যাবে রয়েছে ১ গিগাবাইট র‌্যাম।  আপনি র‌্যামের মধ্যে ইউজার available পাবেন ৯৬২ মেগাবাইট।  ট্যাবের দাম অনুযায়ী এ চেয়ে বেশি র‌্যাম আশা করা অবান্তর।আর Built in rom দেয়া আছে 8 GB. যার মধ্যে আপনি 5.7 GB Unified Storage হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন। আর বাকি যায়গা টুকু ট্যাবে OS এবং Built in app ইনষ্টল এর জন্য ব্যবহার হয়েছে।

Ram

UI (12)

 

GPU & CPU

Walpad c ট্যাবে ব্যবহার হয়েছে mali 400 GPU. যা প্রায় সকল MTK Device এর সাথেই ব্যবহার হয়। আর সাথে রয়েছে 1.3 GHz Quadcore Processor. কাজেই আপনারা এই ট্যাবে মাল্টিটাস্কিং নিয়ে কোন প্রকার সমস্যায় পরবেন না বলে আমার বিশ্বাস। গেমিং, Video watching, এর ক্ষেত্রে আপনি যথেস্ট স্মুদ পারফরমেন্স পাবেন।

CPU

ইউজার ইন্টারফেসঃ

ট্যাবের ইউজার ইন্টারফেস মোবাইল থেকে সাধারণত অনেক আলাদা। সেটিং, Status Bar থেকে শুরু করে প্রায় সবকিছুই আলাদা। যেটা আমি আপনাদের নিচের অংশে স্ক্রিনশটে দেখাবো। আর আমার ব্যক্তিগত সাজেশন হবে আপনারা Stock Launcher নিয়েই সন্তুষ্ট থাকেন। কেননা, ট্যাবে যদি লঞ্চার ইউজ করেন, তো মোবাইল ফোনের মত মজা পাবেন না। বরং আপনার কাছেই বিরক্ত লাগবে।

ক্যামেরাঃ

Walpad C-তে rear Camera রয়েছে 3.2 MP ক্যামেরা, আর ফ্রন্ট ক্যামেরায় ব্যবহার করা হয়েছে VGA Camera. তবে যেহেতু ফ্ল্যাশ রয়েছে, তাই আপনারা ছবি তোলার সময় কিছুটা সান্তনা পাবেন এই ভেবে যে অন্তত ক্যামেরায় ফ্ল্যাশ রয়েছে। আর তাছাড়া ক্যামেরা দিয়ে আপনি Full HD Video recording (1080p)করতে পারবেন। চলুন আপনাদের সাথে এই ট্যাব দিয়ে তোলা কিছু ছবি শেয়ার করি।

IMG_20150726_081633

IMG_20150726_081754

এছড়া এই ট্যাবের ফ্রন্ট ক্যামেরা একেবারে খারাপ না।

বেঞ্চমার্ক টেস্টঃ

আমরা এই ট্যাবটি-তে antutu benchmark test করেছি। এই ট্যাবে এত স্কোর আসবে এটা আমার ধারনা ছিলনা। এত কামদামী ট্যাবে এত স্কোর!!!!!!!!!!! Antutu Benchmark Test এ এই ট্যাবের স্কোর এসেছে 17,856. যা এই বাজেটে যেকোন ট্যাবের ক্ষেত্রে-ই সুপার্ব।

Benchmark (3)

Benchmark (2)

আর এই ট্যাবে nena mark test করেছি, যেখানে গ্রাফিক্স স্কোর এসেছে ৪৮.৭।

Benchmark (1)

Special Features:

OTG & OTA:

এই দুটো ফিচার সম্পর্কে আপনার এখন আর বিষদ বর্ণনা দিতে হবেনা মনে হয়। কেননা এই ফিচার গুলো আমার আগের রিভিউ-এর বিস্তারিত আলোচনা করেছি। Online Update এর জন্য OTA একটি বিশেষ সুবিধা যা বিশ্বের সকল স্মার্টফোনেই রয়েছে। আর OTG কি বা এর কাজ কি, এটা তো জানেন-ই। মোবাইলে Mouse, Keyboard, pen drive থেকে শুরু করে বিভিন্ন সুবিধা পাবেন আপনারা OTG দিয়ে।

খারাপ লাগা দিকঃ

 

ট্যাবের কথা মাথায় আসলে সবার আগে আমাদের মাথায় যেটা আসে সেটা হলো Giant Screen এবং বিশাল Power এর ব্যাটারি। আমার কাছে এই ট্যাবের যে বিষয়টা খারপ লেগেছে তা হলো ব্যাটারি। যেখানে Walton এর স্মার্টফোন গুলোতে মোবাইলের স্ক্রিন অনুযায়ী মোটামুটি ভারসাম্য অনুযায়ী ব্যাটারি রয়েছে সেখানে ৭” স্ক্রিন যুক্ত এই ট্যাবের ব্যাটারি 2850 mAh. যা ট্যাব হিসেবে একটু কম তো অবশ্যই। তবে এটা আমার নিজস্ব মতামত। আশা করবো Walton কর্তৃপক্ষ পরবর্তীতে এই বিষয় গুলো মাথায় রাখবে।

মূল্য

Walpad C এর বাজার মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৭,৭৯৯ টাকা।

সিদ্ধান্ত:

একটা সময়ে আমরা ২০ হাজার টাকার নিচে ট্যাব তো দূরের কথা, ভালো মানের মোবাইল ফোন-ই প্রত্যাশা করতাম না। সেখানে এখন ৭,৯৯০ টাকায় ট্যাবলেট পাচ্ছেন এটা কি বহুত কিছু না? যাদের ট্যাবের প্রতি আগ্রহ আছে, কিন্তু বাজেট কম, তাদের জন্য এই ট্যাবটি হতে পারে the best choice. এছাড়ারা ‍যারা Students, তাদের জন্য সবচাইতে বেশি উপযোগী, বিশেষ করে কম দামে মানসম্মত মানের ট্যাব পাবেন আপনারা মাত্র ৭,৯৯০ টাকায়।

 

মন্তব্যসমূহ