শেয়ার

Android-M-preview-head

এন্ড্রয়েড ললিপপের গ্লোবাল শেয়ার মাত্র ১০%, কিন্তু তাই বলে থেমে নেই গুগল। এরই মধ্যে চলে এল পরবর্তি এনড্রয়েডের ঘোষণা। এতে কোন সন্দেহ নেই যে Google I/O এর প্রথম দিনে সবার উত্তেজনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল গুগলের পরবর্তি মেজর এন্ড্রয়েড রিলিজ- Android M. গুগল নিরাশ করেনি এত মানুষকে। প্রথম দিনের প্রথম দিকেই অফিশিয়ালি ঘোষণা করা হয় Android M. সাথে আলোচনা আর হাইলাইট করা হয় এর কিছু মেজর ফিচারের উপর। ললিপপের ফোকাস ছিল ইউজার ইন্টারফেস ইম্প্রুভমেন্ট, এবারের রিলিজে সম্পূর্ণ ফোকাস থাকছে ইউজার এক্সপেরিয়েন্স ইম্প্রুভমেন্টের ওপর, ভিজুয়ালি তাই তেমন কোন নতুনত্ব থাকছে না। চলুন দেখে নেওয়া যাক কি থাকছে নতুন Android M-এ

 

পলিশ আর কোয়ালিটিঃ

এটা Android M এর প্রধান ফোকাস হবে। ললিপপে এন্ড্রয়েডের লুক ব্যাপকভাবে রিডিজাইন করার পর এই মেজর রিলিজের মূল ফোকাস হবে ইউজার এক্সপেরিয়েন্সকে রিফাইন করা। M এর জন্য গুগল ফিরে যাচ্ছে অপারেটিং-এর বেসিকে। ইউজার এক্সপেরিয়েন্স, কোয়ালিটি আর অপটিমাইজেশন পলিশ করার সাথে সাথে সলভ করা হয়েছে হাজারো বাগ, বিভিন্ন সিকিউরিটি হোল কে বন্ধ করা হয়েছে (তার মানে কি রুট করা হবে আরও জটিল?)।

 

আরও ভাল পারমিশন ম্যানেজমেন্টঃ

App-permissions

অ্যাপ পারমিশনে আনা হয়েছে নতুনত্ব। বিভিন্ন অ্যাপকে আরও স্পেসিফিক ক্যাটাগরিতে ভাগ করে এসবের পারমিশনের ব্যাপারে পরিবর্তন থাকছে এবার। এখন অ্যাপ ইন্সটল করার সময় পারমিশন নিয়ে আর চিন্তা করতে হবেনা, বরং এখন কোন অ্যাপ ওপেন করার পর কোন কাজের সময় কি পারমিশন চাইবে সেটা তখনই দেখানো হবে, গ্রান্ট করুন বা ডিনাই (প্রথমবার শুধু)। স্টেজে এই ফিচার ঘোষণার সময় হোয়াটসঅ্যাপের মাইক্রোফোন একসেসের উদাহরণ দেওয়া হয়। ফোনের সেটিংস মেনুতে থাকছে বিভিন্ন অ্যাপের জন্য পারমিশন ম্যানেজ করার অপশন। এই নতুন পারমিশন ম্যানেজমেন্ট আপনার অ্যাপ এক্সপেরিয়েন্সকে আরও সহজতর আর সিকিউর করবে, কারণ আপনি রিয়াল টাইমে দেখতে পাবেন কোন অ্যাপ কখন কি পারমিশন নিয়ে কি কাজ করতে চাইছে। এটা বর্তমান এন্ড্রয়েডের পারমিশন ম্যানেজমেন্ট থেকে অনেক বেশি ইনফরমেটিভ আর সুবিধাজনক।

App-permissions-Android-M

 

ওয়েব এক্সপেরিয়েন্স আর অ্যাপ লিঙ্কিং:

Android M  ডেভেলপার আর ইউজার লেভেলে ওয়েব এক্সপেরিয়েন্সকে আরও সহজতর করবে। ডেভেলপাররা এখন তাদের অ্যাপের মধ্যে ক্রোম কাস্টম ট্যাব ব্যবহার করে একে এমনভাবে বিল্ড করতে পারবেন যেন ইন-অ্যাপ ওয়েব একসেস নতুন অ্যাপ/ব্রাউজার ওপেন না করে সেই অ্যাপেরই একটা অংশ হিসেবে কাজ করতে পারে। বর্তমান ফেসবুক অ্যাপ যেভাবে কাজ করে, কিছুটা সেরকম ফিচার আসছে সকল অ্যাপের জন্য। উদাহরণস্বরূপ, Pinterest  এর ক্ষেত্রে এখন আপনি যখনই কোন লিংক ক্লিক করবেন সেটা দ্রুত ছোট একটি স্পিড উইন্ডো ওপেন করবে সেখানেই, যেন এটি সেই অ্যাপেরই অংশ। আপনার ওপেন করার আগেই এটি সেই ইনফর্মেশন প্রি-ফেচ করে রাখবে, যাতে লোডিং তাইম হবে আরও কম। একই সাথে গুগলও বিভিন্ন অ্যাপের মধ্যে গভীর লিঙ্কিং এর কাজ করছে যার মাধ্যমে একটি অ্যাপ অন্য কোন অ্যাপের কোন স্পেসিফিক স্ক্রিনকে সরাসরি পয়েন্ট করতে পারবে। (উদাহরণস্বরূপ, কোন অ্যাপ এখন কোন স্পেসিফিক ওয়েব পেজের সাথে লিঙ্কড থাকতে পারবে, শুধু এর হোমপেজের সাথেই নয়)

 

এন্ড্রয়েড পেঃ

Android-Pay

গুগলের নিজস্ব পেমেন্ট সিস্টেম যা এই বছরের শুরুর দিকে উন্মুক্ত করা হয়, থাকবে Android M এর অন্যতম প্রধান ফোকাসে। এটার সহায়তায় আপনি আপনার ফোন দ্বারা NFC ইকুইপড রিটেইলারদের কাছ থেকে পণ্য ক্রয় করতে পারবেন আর এটা হবে ট্রেডিশনাল ক্রেডিট/ডেবিট কার্ডের থেকে অনেক বেশি সিকিওর, কারণ প্রতি পেমেন্টে এটি ভিন্ন ভিন্ন ভার্চুয়াল কার্ড নম্বর জেনারেট করবে। গুগল বলেছে প্রায় ৭,০০,০০০ থেকেও বেশি লোকেশনে এন্ড্রয়েড পে কাজ করবে আর এটা ভিসা, মাস্টারকার্ড, AmEx আর ডিসকভার কার্ড সাপোর্ট করবে।

 

নেটিভ ফিংগারপ্রিন্ট অথেন্টিকেশনঃ

Android M এর মাধ্যমে গুগল ফিঙ্গারপ্রিন্ট অথেন্টিকেশনকে একটি স্ট্যান্ডার্ডে আনছে। এতদিন বিভিন্ন স্মার্টফোন নির্মাতা তাদের ডিভাইসে বিভিন্নভাবে এই ফিচারটি ব্যবহার করেছে, যেগুলোকে আসলে কোন সার্বজনীন গ্রহণযোগ্যতার মানদন্ডে ফেলা যেত না। Android M এর মাধ্যমে এখন সম্ভব হবে সেটা। নতুন এই সিস্টেম এনড্রয়েড পে, ইন-অ্যাপ পারচেস আর হ্যাঁ, আপনার ডিভাইস আনলকে ব্যাপকভাবে সহায়তা করবে, সর্বোচ্চ নিরাপত্তার সাথে।

 

ব্যাটারি অপ্টিমাইজেশনঃ

Android-M-Dozing

স্মার্টফোনে ব্যাটারি নিয়ে সকলেরই চিন্তা থাকে। Android M এর থাকছে নতুন কিছু অপ্টিমাইজেশন ক্ষমতা যা আপনার ডিভাইসের সর্বোচ্চ ব্যাটারি ব্যাকাপ নিশ্চিত করবে। গুগল এতে নতুন একটি ফিচার দিয়েছে যার নাম ‘ডোজ’ (Doze)। এই ফিচার আপনার ফোনের বিভিন্ন সেন্সর ব্যাবহার করে ঠিক করবে কখন এটি ব্যবহৃত হচ্ছে, আর কখন হচ্ছে না। যখন আপনি আপনার ফোন ব্যবহার করবেন না তখন এই ফিচার অটোমেটিক্যালি পাওয়ার কনজার্ভ করবে। সেই সাথে এটি আপনার ইম্পর্টেন্ট অ্যাপ বা নোটিফিকেশন ক্লোজও করবেনা। গুগলের মতে এই ডোজ ফিচারটি তারা নেক্সাস ৯-এ টেস্ট করেছে এবং যার ফল- প্রায় দ্বিগুণ ব্যাটারি ব্যাকাপ। তাহলে বুঝাই যাচ্ছে নতুন এই ফিচার যথেষ্ট কার্যকর। আসলে কতটা কার্যকর, বিশেষভাবে ফোনের ক্ষেত্রে (কারণ ফোন ট্যাবের তুলনায় অনেক বেশি নাড়াচাড়া আর ঘুরাফিরার মধ্যে থাকে), সেটা বুঝা যাবে ফাইনাল রিলিজের পর। সেইসাথে, Android M এখন অফিশিয়ালি সাপোর্ট করছে USB Type-C কানেক্টিভিটি, যার ফলে চার্জিং হবে আরও দ্রুতগতিতে (যারা জানেন না, USB Type-C বর্তমানে সবচেয়ে দ্রুতগতির USB কানেক্টিভিটি সল্যুশন, USB 3.0 এর পর, এবং এটি রিভার্সিবল)। সেই সাথে USB Type-C বাইডাইরেকশনাল হওয়াতে আপনি এই কেবল ব্যবহার করে আপনার ফোন থেকে অন্য ফোনে এমনকি স্মার্টওয়াচেও (কম্প্যাটিবল) চার্জ দিতে পারবেন।

Battery-optimizations

 

ডার্ক থিমঃ

gsmarena_012

অনেক ইউজারদের রিকুয়েস্ট করা একটি ফিচার থাকছে Android M –এ। ডার্ক ইউজার ইন্টারফেস। ডেভেলপার অপশনে থাকছে এই ফিচার এনাবল করার অপশন (দুটি অপশন- লাইট আর ডার্ক)। AMOLED স্ক্রিন ব্যবহারীদের জন্য এটি সুখবর।

 

আরও ইম্প্রুভড গুগল নাওঃ

Android M –এর গুগল নাও-এ থাকছে অনেক ইম্প্রুভমেন্ট। ‘Now On Tap’ ফিচারের মাধ্যমে গুগল নাও এখন আপনার কনটেক্সট আরও ভালোভাবে বুঝতে পারবে, সেই সাথে আপনি কোন অ্যাপের কোন কনটেন্ট ব্যবহার করছেন সেটাও। উদাহরণস্বরূপ, আপনি কোন গান শুনছেন, এই অবস্থায় গুগল নাও একটিভ করে এর আর্টিস্ট সম্পর্কে কিছু জিজ্ঞাসা করলেন, গুগল নাও অটোমেটিক বুঝতে পারবে আপনই কার সাথে আর কার ব্যাপারে কথা বলছেন। আবার গুগল ক্রোমে কোন স্টার বা আর্টিস্টের নাম হাইলাইট করে গুগল নাও সিলেক্ট করা মাত্র সব তথ্য নিয়ে আসবে গুগল নাও তার ব্যাপারে। আরও অনেক কিছুই থাকছে এবার এতে।

 

স্মার্ট শেয়ারঃ

gsmarena_002

 

বিভিন্নভাবে বিভিন্ন ফাইল শেয়ার করা আমাদের প্রতিনিয়তের কাজ। কিন্তু এতদিন এন্ড্রয়েডের শেয়ার অপশন একটা নির্দিষ্ট প্যাটার্নে কাজ করত, এখন যা হবে স্মার্ট। নতুন এই সিস্টেমে ডিভাইস অটোমেটিক্যালি শিখবে আপনি কোন ধরনের কনটেন্ট কিভাবে আর কার সাথে বেশি শেয়ার করেন। আর তাই পরবর্তিতে শেয়ারের সময় সেই অ্যাপ আর সেই ব্যাক্তিটির সাজেশন থাকবে সবার আগে।

 

ক্যাটাগরাইজড ভলিউম কন্ট্রোলঃ

gsmarena_004

 

Android M এ এখন ডিফল্টভাবে ভলিউম বাটনে থাকবে ক্যাটাগরাইজড ভলিউম কন্ট্রোল করার সুবিধা। অর্থ্যাৎ রিঙ্গার, মিউজিক, এলার্ম, মাস্টার ভলিউম ইত্যাদির জন্য আলাদা আলাদা স্লাইডার, এতদিন যা শুধু মাস্টার স্লাইডারেই সীমাবদ্ধ ছিল। সেই সাথে Do Not Disturb মোড থাকছে কুইক সেটিংস মেনুতে।

New-volume-bar-2

 

ইম্প্রুভড টেক্সট সিলেকশন, ফ্লোটিং টুলবারঃ

gsmarena_003 (1)

Android M এ টেক্সট সিলেকশনকে করা হয়েছে আরও ইউজার ফ্রেন্ডলি। এখন দরকারি অপশনগুলো সিলেক্ট করা টেক্সটের সাথেই ভেসে উঠবে, আগে যেটা সবসময় সবার উপরে থাকত। কাট, কপি, পেস্ট, কমেন্ট, ট্রান্সলেট ইত্যাদি অপশন থাকছে হাতের কাছে। সেই সাথে টেক্সট সিলেকশন এখন লেটার বাই লেটার না গিয়ে যাবে ওয়ার্ড বাই ওয়ার্ড (পূর্বের অপশনও থাকবে, যদি আপনি চান)।

 

অ্যাপ স্ট্যান্ডবাইঃ

আমরা DOZE নিয়ে কথা বলেছি, যা ডিভাইসকে ডিপ-স্লিপে নিয়ে যায় যখন ডিভাইস অব্যবহৃত অবস্থায় থাকে। অ্যাপ স্ট্যান্ডবাই অপশন কিছুটা এরকম। এটি আপনার দীর্ঘ সময় অব্যবহৃত কোন অ্যাপকে অটোমেটিক ডিটেক্ট করে সেটাকে স্ট্যান্ডবাই করে রাখবে।

 

অ্যাডাপ্টেবল স্টোরেজ ডিভাইসঃ

Android M এ আরও উন্নত করা হয়েছে স্টোরেজ সিস্টেম। ইউজাররা এখন SD কার্ড এ্যাড করতে পারবেন আর সিস্টেম সেটাকে  এমনভাবে অ্যাডাপ্ট করবে যেন সেটা ইন্টারনাল স্টোরেজের মতই কাজ করে। মেমরি কার্ড ফরম্যাট আর এনক্রিপ্টেড হয়ে ইন্টারনাল স্টোরেজের মত শো করবে। এরপর আপনি যে কোন অ্যাপ বা অ্যাপ ডাটা আপনার রিমুভেবল মেমরিতে ইন্সটল করতে পারবেন। একই সাথে উন্নত করা হয়েছে USB OTG সাপোর্ট।

gsmarena_006

 

নতুন র‍্যাম ম্যানেজারঃ

Android-M-will-have-a-new-RAM-manager

Android-M-will-have-a-new-RAM-manager (1)

 

Android M এ থাকছে নতুন র‍্যাম ম্যানেজার। এর মেমরি সেকশন এখন একটু লুকানো, যাতে একসেসের জন্য আপনাকে settings>system>apps এ গিয়ে মেনু ওপেন করে অ্যাডভান্স-এ গিয়ে মেমরি সিলেক্ট করতে হবে। এরপর আপনি দেখতে পারবেন প্রতি অ্যাপ বেইজড ডিটেইল্ড মেমরি স্ট্যাটাস, কোন অ্যাপ অ্যাভারেজ এবং ম্যাক্সিমাম কত মেমরি ব্যবহার করছে ইত্যাদি।

 

আপাততের জন্য Google I/O আর ডেভেলপার হ্যান্ডস-অন এর মাধ্যমে Android M এর এই কয়টা ফিচারকে হাইলাইট করা হয়েছে। পরে প্রকাশ করা সম্পূর্ণ ৫৫টি চেঞ্জলগ দিয়ে দিলাম এখানেঃ

 

All New Features/Complete Change LOG:

 

Major Features-

 

 

Easy Word Selection & Floating Clipboard Toolbar

Native Fingerprint Sensor Support

Direct Share

Doze

Simplified Volume Control

Google Now On Tap

Auto Backup For Apps

Contextual Assist Framework

Secure Token Storage APIs

Setup Wizard: IMAP sign-in

App Standby

Flex Storage

 

Important Features:

 

Data Usage API For Work Profiles

Bluetooth SAP

Voice Interaction Service

App Link Verification

Text Selection Actions

Unified App Settings View

Corporate Owned Single Use Device Support

Improved Trusted Face Reliability

New Runtime Permissions

Google Now Launcher App Suggestions

5GHz Portable Wi-Fi Hotspot

Seven Additional Languages

 

Less Important Features:

 

Work Contacts In Personal Contexts

Hotspot 2.0

VPN Apps In Settings

Duplex Printing

Seamless Certificate Installation For Enterprise

Undo/Redo Keyboard Shortcuts

Do Not Disturb Automatic Rules

Material Design Support Library

Android Pay

USB Type-C Charging

Battery Historian V2

BT 4.2

Improved Bluetooth Low Energy Scanning

Improved Text Hyphenation & Justification

Improved Diagnostics In Systrace

IT Admin Acceptance Of OTAs

Chrome Custom Tabs

UI Toolkit

Enterprise Factory Reset Protection

Do Not Disturb Quick Settings & Repeat caller Prioritization

Improved Text Layout Performance

Alphabetic App List With Search

Stylus Support

UI Toolkit Performance Improvements

Unified Google Settings & Device Settings

Work Status Notification

MIDI Support

Bluetooth Connectivity For Device Provisioning

Power Improvements In Wi-Fi Scanning

Data Binding Support Library Beta

Delegated Certificate Installation

 

Better-Photos-app

gsmarena_007

gsmarena_008 gsmarena_010 gsmarena_009

 

এই রিলিজে ভিজুয়ালি বিশেষ কোন পরিবর্তন আনা হয়নি। অনেক ফিচার এমন রয়েছে যেগুলো বিভিন্ন কাস্টম রমে অলরেডি এভেইলেবল। অনেকের কাছে এটা খুব বেশি কিছু মনে নাও হতে পারে, কিন্তু গুগলের এবারের ফোকাস- অপটিমাইজেশন আর ইউজার এক্সপেরিয়েন্স- প্রশংসনীয় একটি উদ্যোগ। বলা যায় এনড্রয়েড এল এর অপূর্ণতাকে পূর্ণ করছে এনড্রয়েড এম। Android M  এর একটি ডেভেলপার প্রিভিউ আজ থেকেই পাবেন ডেভেলপাররা, এটি কাজ করবে নেক্সাস ৫, ৬ এবং ৯-এ। যেখানে বেশিরভাগ কম্প্যাটিবল ডিভাইস এখনও ঠিকমত ললিপপ আপডেটই পায়নি সেখানে চলেই এল Android M এর ঘোষণা। একেবারে প্রথম সারির ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইস ইউজারদের কথা বাদ দিয়ে, কতজন পাবেন বলে মনে করেন এই আপডেট? (বিশেষভাবে যোগ্য হার্ডওয়্যার থাকা সত্ত্বেও এখনও যারা ললিপ আপডেটের অপেক্ষায় আছেন)? ওয়েল, HTC এরই মধ্যে ঘোষণা করেছে এর M9, M9+ আর তাদের কিছু প্রথম সারির ডিভাইস সবার আগে পাবে Android M আপডেট। অবশ্যই, এই ‘M’ এর আসল কোডনেম জানা যায়নি এখন, আপনাদের কি মনে হয়, কি হতে পারে (আবার বলেন না যেন মিল্কশেক, কারণ এটা Android M এর নাম হবেনা সেটা অলরেডি বলে দেওয়া হয়েছে)? কনজিউমার পর্যায়ে কবে আসবে Android M সেটাও নিশ্চিতভাবে বলা হয়নি, তবে আসছে ২০১৫ সালের শেষের দিকে। ততদিনে এর ছোট বড় আরও অনেক নতুন ফিচার সম্পর্কেই জানা যাবে, যেগুলো উল্লেখ করা হল সেগুলোর ডিটেইলস জানা যাবে। আর সেগুলোর খবর পেতে সাথেই থাকুন এন্ড্রয়েড সমগ্রের।

মন্তব্যসমূহ