শেয়ার

Walton Primo F5 এর হ্যন্ডস অন রিভিউ
কম দামে চরম একটি স্মার্টফোন!!

বর্তমান বিশ্বে দিনকে দিন স্মার্টফোনের কদর বেড়েই চলেছে। আর স্মার্টফোনের অপারেটিং সিস্টেম এর বেশির ভাগ টাই এখন এন্ড্রয়েড এর দখল এ। বিভিন্ন ব্র্যান্ড ও নন-ব্র্যান্ড কোম্পানি প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন স্মার্টফোন বাজারে আনছে। তারা সাধারণ ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে আনছে বিভিন্ন স্পেশাল ফিচারযুক্ত স্মার্টফোন। তাছাড়াও তারা কম দামে ভাল স্মার্টফোন ও ইউজারদের কাছে পৌঁছে দিতে চাইছে। তাইতো বাংলাদেশের মত একটি সদা উন্নয়নশীল দেশেও আজ স্মার্টফোনের আলাদা কদর। এর অনেকটাই সম্ভব হয়েছে দেশীয় ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে কম দামে ভাল স্মার্টফোন আনার কারণে। আর, অবশ্যই এদিক দিয়ে আমাদের দেশে Walton কোম্পানি অনেকটাই এগিয়ে। এদেশের সাধারণ ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে এরি মধ্যে Walton কম দামে অনেক ভাল ফোন এনে ক্রেতাদের মন জয় করেছে। তারই ধারাবাহিকতায় Walton কোম্পানির অতি সাম্প্রতিক প্রচেষ্টা হল Walton Primo F5!! মাত্র ৬৬৯০ টাকায় Walton এই ফোনে যেরকম ফিচার দিয়েছে, বলতে গেলে এককথায় “Awesome”!!! OTG, OTA, Anti-Theft সহ আরো অনেক ফিচার সহ এই ফোনটি অনেকেরই নজর কাড়বে বলে আশা করা যায়।

এই ফোনের স্টাইল টাও অসাধারণ। এই দামে যেকোন স্মার্টফোনের চেয়ে ভাল, এটা বাজি ধরে বলা যেতে পারে। দু ধরণের শাইনি ব্যাককভার ও এই ফোনের লুক কে আরো অসাধারণ করে তুলেছে। তাছাড়া এই ফোনের পারফরমেন্স ও তাক লাগিয়ে দেওয়ার মত!!

এই ফোনের রিয়ার ক্যামেরা হিসেবে অটোফোকাস সম্বলিত ৫ মেগা পিক্সেল ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। তাছাড়াও ফ্রন্ট ক্যামেরা হিসেবে দেওয়া হয়েছে ভিজিএ ক্যামেরা। এই বাজেটের জন্য অসাধারণ কনফিগ!!!!

এত কম দামে এমন একটি ফিচারড স্মার্টফোন পাওয়া যাবে এটা হয়ত একদিন কল্পনাও করা যেত না। আজ, এমনি এক স্মার্টফোনের সর্বপ্রথম রিভিউ আপনাদের সামনে আনতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে হচ্ছে। 🙂 তো চলুন, আর কথা না বাড়িয়ে ফোনটির আউটলুক আর পারফরমেন্স সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানি।

প্রথমেই সবসময়ের মত পয়েন্টেড আউট কী ফিচারস। এই ফোনটি নিয়ে আলোচনা করতে গেলে ১ম এই যেগুলো বলতে হয়ঃ

* এন্ড্রয়েড ৪.৪.২ কিটক্যাট অপারেটিং সিস্টেম
* ডুয়াল সিম, এবং দুই সিমেই ৩জি সাপোর্ট
* ৪ ইঞ্চি IPS WVGA ডিসপ্লে
* ১.৩ গিগাহার্জ কোয়াডকোর প্রসেসর
* Mali-400MP জিপিইউ
* ৫১২ এম বি র‍্যাম
* ৪ জিবি রম
* ৩২ জিবি পর্যন্ত এক্সটারনাল এস ডি কার্ড সাপোর্ট
* অটোফোকাস টেকনোলজি সমৃদ্ধ ৫ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা
* ভিজিএ ফ্রন্ট ক্যামেরা (০.৪ মেগা পিক্সেল)
* অ্যাক্সেলারো মিটার ৩ডি, প্রক্সিমিটি সেন্সর ও লাইট সেন্সর
* 1850 MAh এর লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি
* OTA Update সুবিধা
* USB OTG
* Anti-Theft, Air shuffle Features, Auto Start Managment সহ আরো অনেক বিল্ট ইন স্পেশাল ফিচার

সেটটির সাথে যা যা রয়েছেঃ

Primo F5 এর বক্সে আপনি যা যা পাবেনঃ
১. ১৮৫০ এম এ এইচ ব্যাটারি
২. চার্জার এডাপটার
৩. ডাটা ক্যাবল
৪. ইয়ারফোন
৫. ইউজার ম্যানুয়াল
৬. ওয়ারেন্টি কার্ড
৭. একটি এক্সট্রা স্ক্রিন প্রটেক্টর

UnBoxing

অপারেটিং সিস্টেম :
Walton Primo F5 এ বর্তমানের বেশির ভাগ দেশীয় স্মার্টফোন এ ব্যবহৃত এন্ড্রয়েড ৪.৪.২ কিটক্যাট ও এস ব্যবহার করা হয়েছে।

OS (1) OS (2)

ডিজাইন ও বিল্ড কোয়ালিটি :
Walton Primo F5 ফোনটির ডিজাইন খুবই চমৎকার। ফোনটির কোণাগুলো কিছুটা Curvy, যার ফলে এটি বহন করা খুবই সহজ ও আরামদায়ক। তাছাড়া ফোনটির দুই রংয়ের চকচকে স্টাইলিশ ব্যাক কভার ফোনটির লুক কে আরো সুন্দর করে তুলেছে। ফোনটির উভয় পাশে হালকা লেদার এর স্ট্রাইপ রয়েছে। ফলে আপনি ফোন টি হোল্ড করে কোন ধরণের অস্বস্তি অনুভব করবেন না। 🙂

Back (1) Back (2) Up Down

ফোনটির বামপাশে উপরে পাওয়ার বাটন এবং ঠিক তার নিচেই ভলিউম আপ ও ডাউন বাটন দেওয়া হয়েছে। এর ডানপাশ সম্পুর্ণ খালি রাখা হয়েছে। তাছাড়া ফোনটির উপরের দিকে ৩.৫ মিলিমিটার অডিও জ্যাক দেওয়া হয়েছে, আর নিচের দিকে ইউ এস বি ও চার্জিং পোর্ট দেওয়া হয়েছে।

All Buttons

ফোনটির পিছনের দিকে রয়েছে ৫ মেগা পিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা ও ফ্লাশ এবং লাউডস্পিকার। ফোনটির সামনের দিকে রয়েছে হেডপিস, ফ্রন্ট ক্যামেরা, লাইট ও প্রক্সিমিটি সেন্সর এবং নোটিফিকেশন LED। তাছাড়াও ডিসপ্লের নিচের দিকে রয়েছে ক্যাপাসিটিভ টাচ বাটনস।

Outlook (4) Outlook (6) Outlook (1) Outlook (2) Outlook (3) Outlook (5) Outlook (7) Outlook (8)

Walton Primo F5 স্মার্টফোনটির উচ্চতা ১২৩ মিলিমিটার। সেটটি প্রস্থে ৬৩.৮ মিলিমিটার এবং এর প্রশস্থতা ৯.৭ মিলিমিটার। ব্যাটারি সহ ফোনটির ওজন মাত্র ১৩০ গ্রাম!!

Height Width

ডিসপ্লে:
Walton Primo F5 স্মার্টফোনে ৪ ইঞ্চির IPS ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। ডিসপ্লে রেজুলেশন ৮০০*৪৮০ অর্থাৎ WVGA ডিসপ্লে। এতে ১৬.৭ মিলিয়ন রঙ সাপোর্ট করে। ডিসপ্লে ডেনসিটি 240 dpi. ক্যাপাসিটিভ টাচ কন্ট্রোলড এই টাচ স্ক্রিন এ ২ আংগুল পর্যন্ত মাল্টিটাচ সাপোর্ট করে।

Screen Front Multi Touch

ইউজার ইন্টারফেস:
এই স্মার্টফোনটির ইউজার ইন্টারফেস খুবই সুন্দর করা হয়েছে! এই সেটের স্টক লাঞ্চার টির স্টাইল খুবই চমৎকার। তাছাড়া, ফোনটিতে এক্সট্রা থিম ও দেওয়া আছে কিছু, যা দিয়ে আপনি এই সেটের ইউজার ইন্টারফেসের স্টাইল চেঞ্জ করতে পারবেন যে কোন সময়। তাছাড়া, এই সেটে আলাদা আলাদা ভাবে লক স্ক্রিন ও মেইন মেনুর ওয়ালপেপার ও সেট করা যায়। এককথায়, যেকোন ইউজার এই ইউজার ইন্টারফেস এ খুব জলদি ইন্টার‍্যাক্ট করতে পারবেন এবং ইউজ করে মজা পাবেন। তাছাড়া এর ইউ আই ট্রানজিশনও খুব স্মুথ।

Home Menu (1) Menu (2) Notifications-Settings Panel Themes

Settings UI (1) Settings UI (2) Settings UI (3)

চিপসেটঃ
Primo F5 এ চিপসেট হিসেবে মিডিয়াটেক এর MT6582 চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে।

প্রসেসরঃ
এই স্মার্টফোনে কোর্টেক্স এ-৭ আর্কিটেকচার বেজড ১.৩ গিগাহার্জ ক্লকস্পীড সম্বলিত কোয়াড কোর প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে, যেকোন এপ এর প্রসেসিং হবে দ্রুত! 🙂

জিপিইউঃ
Walton Primo F5 এ জিপিইউ হিসেবে Mali-400MP দেওয়া হয়েছে। এই বাজেটে যেকোন স্মার্টফোনের জন্য এটি খুবই ভাল জিপিইউ। অবশ্য শুধু জিপিইউ দিয়ে গ্রাফিক্স পারফরমেন্স বিচার করা যায় না, সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন ও এই ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এই সেটের গ্রাফিক্স পারফরমেন্স আমরা এর নেনামার্ক টেস্ট করেই বুঝতে পারব। নিচেই আপনারা তা দেখতে পাবেন।

র‍্যামঃ
এই সেটে র‍্যাম হিসেবে ৫১২ এম্ বি র‍্যাম দেওয়া হয়েছে। ঠিক জিপিইউ এর মত, র‍্যাম পারফরমেন্স ও অনেকটাই নির্ভর করে সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন এর উপর। তবে, এই বাজেটে যে কোন সেটের জন্য এতটুকু র‍্যাম ই যথেষ্ট।

CPU-Z (1) CPU-Z (2)

Hardware (1) Hardware (2) Hardware (3) Hardware (4) Hardware (5) Ram

রম ও স্টোরেজঃ
এই ফোনে ৪ জিবি রম দেওয়া হয়েছে যার মধ্যে ১.৩১ জিবি ফোন স্টোরেজ হিসেবে, ১ জিবির নইত এপস ইন্সটল এর জন্য দেওয়া হয়েছে। বাকিটা সিস্টেম রিজার্ভড। তাছাড়া, এই সেটে ৩২ জিবি পর্যন্ত এক্সটারনাল এস ডি কার্ড সাপোর্ট করে।

Phone Storage Storage (1)

ক্যামেরাঃ
Walton Primo F5 ফোনটিতে ৫ মেগাপিক্সেল এর অটোফোকাস টেকনোলজি সমৃদ্ধ ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে।  তাছাড়াও এই ফোনের স্টক ক্যামেরা এপ্লিকেশন এ অনেক অপশন ও দেওয়া হয়েছে।

Camera

Camera Fetures (1)

 

Camera Fetures (2)

এর সাহায্যে আপনি অনেক হাই কোয়ালিটির ছবি তুলতে পারবেন। নিচের ছবিগুলো দেখলেই আপনি বুঝতে পারবেন যে কথাটা কতটা সত্যি। 🙂 তাছাড়া এই সেটের ফ্ল্যাশ ও উজ্জ্বল।

Camera Sample (1) Camera Sample (2) Camera Sample (4)

তাছাড়া এই ফোনের ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়েও আপনি পর্যাপ্ত আলোয় ভাল ছবি তুলতে পারবেন।

মাল্টিমিডিয়াঃ
এই সেটে ৩.৫ মিলিমিটার এর অডিও জ্যাক পোর্ট দেওয়া হয়েছে। এই সেটের সাথে দেওয়া হেডফোনের কোয়ালিটি ও খুব ভাল। তাছাড়া বিল্ট ইন মিউজিক প্লেয়ার টাও অসাধারণ। এছাড়াও এই ফোনে আপনি ৭২০ পি ভিডিও ও কোন ল্যাগ ছাড়া দেখতে পারবেন।

Music (2)

Music (1) Multimedia

গেমিং:
Walton Primo F5 এ আমরা অনেক ভাল ভাল গেম ল্যাগ ছাড়াই খেলতে পেরেছি। সাবওয়ে সার্ফার, টেম্পল রান ইত্যাদি গেম খেলতে আমরা কোন সমস্যার সম্মূখীন হই নি। তবে বেশি এইচ ডি গেম খেলার সময় কিছুটা ল্যাগ করবেই। অবশ্য এই বাজেটে একটি ফোন কিনে ল্যাগ ছাড়া এইচ ডি গেম খেলার কথা ভাবাও বোকামি।

F5 features-1

কানেক্টিভিটিঃ
এই ফোনে ব্লুটুথ ৪.০, ওয়াইফাই, হটস্পট, ওয়্যারলেস ডিসপ্লে শেয়ারিং সুবিধা রয়েছে। তাছাড়া এতে জিপিএস ও এ জিপিএস নেভিগেশন সুবিধা তো আছেই।

সিমঃ
Primo F5 এর দুইটি সিমের দুটিই ৩জি সাপোর্টেড। 🙂

সেন্সরঃ
Walton Primo F5 এ Accelerometre 3D, Proximity ও Light Sensor দেওয়া হয়েছে।

Sensors (1) Sensors (2)

ব্যাটারিঃ
এই ফোনে ১৮৫০ এম এ এইচ এর লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। তাই এই সেটের ব্যাটারি ব্যাকআপ নিয়ে চিন্তিত থাকার কোন দরকার নেই।

বেঞ্চমার্ক টেস্টসঃ
সাধারণত কোন সেটের পারফরমেন্স তার বেঞ্চমার্ক টেস্টের মাধ্যমে জানা যায়। আমরা তাই এই সেটে AnTuTu বেঞ্চমার্ক টেস্ট রান করি এই সেটের পারফরমেন্স দেখার জন্য। অবিশ্বাস্য একটি স্কোর আমরা ফলাফল হিসেবে পেয়েছি!! ১৯১০১!!!! যা এই বাজেটে কেন, এর চেয়ে বেশি বাজেটের অনেক সেটেই পাওয়া যায় না। ওয়াল্টন এই ফোনে সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন খুব ভাল ভাবেই করেছে বোঝা যাচ্ছে! 🙂 কাজেই, বুঝতেই পারছেন, বাইরের কনফিগারেশন ই সব নয়।

Antutu Score (1) Antutu Score (2)

নিচে Walton Primo F5 vs Asus Zen5 এর তুলনামূলক চিত্র দেওয়া হলঃ

F5 vs Zen5

নিচে Walton Primo F5 vs Xiaomi MI2 এর তুলনামূলক চিত্র দেওয়া হলঃ

F5 vs Xiaomi MI2

গ্রাফিক্স টেস্ট করার এপ নেনামার্ক এও এসেছে খুবই ভাল স্কোর!! ৫৮.০!!!! কাজেই মোটামোটি ভাল ভাল গেম ল্যাগ ছাড়া খেলা যাবে তা বোঝাই যাচ্ছে!!

Nenamark

ওটিজি:
এই সেটটিতে OTG(USB On The Go) সুবিধা থাকায় আপনি সেট এর সাথে দেওয়া ওটিজি ক্যাবল ব্যবহার করে আপনি এক্সটার্নাল হার্ডডিস্ক,  পেনড্রাইভ, মেমোরি  কার্ডরীডার, গেম প্যাড, কীবোর্ড,  মাউস,  মডেম সহ আরো অনেক ইউ এস বি ইনেবলড ডিভাইস ইউজ করতে পারবেন।

OTG

ওটিএ:
OTA(Over The Air) আপডেট সুবিধার ফলে পিসির সাহায্য ছাড়াই আপনি আপনার সেট এর যেকোন প্রকার অফিসিয়াল সিস্টেম আপডেট ফোনের সাহায্যেই ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। কোন প্রকার সিস্টেম আপডেট চেক এর জন্য কাস্টোমার কেয়ার এও যোগাযোগ করতে হবে না! 🙂

OTA OTA

এন্টি থেফটঃ
Walton Primo F5 এ মোবাইল এর সিকিউরিটি আরো বাড়ানোর জন্য এন্টি থেফট ফিচার এড করা হয়েছে। আপনি শুধুমাত্র একটি মেসেজ এর মাধ্যমে দূরে থেকেই আপনার ফোন সিকিউরিটি লক করতে পারবেন। তাছাড়া, সকল প্রকার পারসোনাল ডাটাও মুছে ফেলতে পারবেন। Walton কে ধন্যবাদ জানাতে হয় এত ভাল ফিচার আনার জন্য, আর এই বাজেটের একটি ফোনে এই স্পেশাল ফিচার টি এড করার জন্য। 🙂

Anti Theft

স্পেশাল ফিচারসঃ
OTA, OTG, Anti-Theft ছাড়াও Air Shuffle, Smart Intelligence, Auto Start Managment সহ আরো বেশ কিছু বিল্ট ইন ফিচার এই ফোনে এড করা হয়েছে।

Auto Start Management (1) Auto Start Management (2)

মূল্যঃ
অসাধারণ স্টাইলিশ ও ভাল কনফিগারেশনের এই ফিচারড সেটটির মূল্য ওয়াল্টন কর্তৃপক্ষ মাত্র ৬৬৯০ টাকা নির্ধারণ করেছে!! এই বাজেটে যে কোন ফোনের চেয়ে এই ফোন স্টাইল, পারফরমেন্স ও ফিচার এর দিক থেকে ভাল তা চোখ বন্ধ করেও বলা যায়। আবারো ধন্যবাদ দিতে হয় ওয়াল্টন কে, এই বাজেটে এত ভাল মানের একটি ফোন এদেশের সাধারণ জনগণকে উপহার দেওয়ার জন্য। 🙂

রং:
Walton Primo F5 ফোনটি সোনালি ও রূপালি দুই রঙে পাওয়া যাচ্ছে।

Primo F5 এর ভাল লাগা দিক গুলোঃ
* চমৎকার স্টাইল
* বাজেটের তুলনায় ভাল কনফিগারেশন
* এই বাজেটেও খুব ভাল ক্যামেরা
* ডুয়াল সিম ৩জি সাপোর্ট
* চকচকে ব্যাককভার
* OTG, OTA
* এন্টি থেফট, এয়ার শাফল সহ আরো অনেক স্পেশাল ফিচার

Primo F5 এর ভাল না লাগা দিক গুলোঃ
সত্যি কথা বলতে কি, আমার মতে এই ফোনে খারাপ লাগার মত কোন দিক নেই, যা আছে তার সবই ভাল লাগার দিক। তবুও অনেকে হয়ত বলতে পারেন র‍্যাম ১ জিবি হলে ভাল হত। তবে সেক্ষেত্রে আনুপাতিক হারে দাম বাড়ত সেটাও মাথায় রাখা দরকার। তাছাড়া আগেও আমি বলেছি, সফটওয়্যার অপটিমাইজেশন ও একটি বড় ফ্যাক্ট!!!

শেষকথাঃ
এই বাজেটে যেকোন ফোন কেনার সময় যে কোন ইউজার এর ১ম পছন্দ এই ফোন টি হওয়া উচিৎ। আমার মতে, এই ফোনটি এই বাজেটের সেরা ফোন!! বাকিটা আপনাদের উপর ডিপেন্ড করবে। 🙂

Outlook (2)

বাংলাদেশের বাজারে কম দামের স্মার্টফোন এনে Walton কোম্পানি তাদের সুনাম দিনকে দিন বাড়িয়ে তুলছে। আগামী দিনেও যেন তারা আরো ভাল মানের স্মার্টফোন আমাদের দেশের সাধারণ জনগণের জন্য কম দামে আনতে পারে সে প্রত্যাশা আমাদের সবার।

ধন্যবাদ। বাংলায় এন্ড্রয়েড সমগ্র এর সাথেই থাকুন। 🙂

মন্তব্যসমূহ