শেয়ার

স্যামসাং নিয়ে এলো বিশ্বের প্রথম আল্ট্রা পাওয়ার সেভিং

কি ভাবছেন? এই Ultra Power Saving টা আবার কি? আপনাদের কে আর বেশি দ্বিধায় ফেলবো না। স্যামসাং যেই প্রযুক্তি টা নিয়ে এসেছে তা হলো Ultra Power Saving, যা ব্যাটারির লাইফ বিপদের সময় কাজে লাগাতে পারবেন। আর এই প্রযুক্তি এখন শুধু মাত্র Samsun Galaxy S5-এ আছে। অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন এই Ultra Power Saving দিয়ে কি কাজ হবে। চলুন, এই বার আপনাদের কে বিস্তারিত ভাবে বর্ণনা করি এই Ultra Power Saving সম্পর্কে।

আমরা যারা কাজের চাপে প্রায় সব সময়ই বাইরে থাকি তারা কিন্তু চার্যার নিয়ে সাথে চলিনা। আবার পোর্টেবল চার্যার কেনার বা বহন করার ধৈর্য্য অনেকে- ই নেই। এর ফলে আমাদের মোবাইলের চার্য কমতে কমতে একদম লো  হয়ে যায়। আর আপনারা জানেন মোবাইলের চার্য ১০-১৫% হলেই মোবাইল অটোমেটিক চার্য দেয়ার জন্য বার বার সিগনাল দেয়। আর প্রয়োজনের সময় চার্যার না থাকার কারণে মোবাইল অফ হয়ে যায় আর অনেক দরকারী কল বা মেইল রিসিভ বা সেন্ড করা যায়না।

Samsung Galaxy S5 যারা ইউজ করেন তাদের জন্য চমৎকার একটা সুবিধা নিয়ে এসেছে স্যামসাং। আর তারা প্রথম বারের মতো যুক্ত করেছে Ultra power Saving প্রযুক্তি। আর এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে আপনি খুব সহজেই আপনার মোবাইলের কম চার্য নিয়েই অনেক কাজ করতে পারবেন। সবচেয়ে ভালো দিক হচ্ছে যদি আপনার মোবাইলে Ultra power Saving Mode অন থাকে তো আপনি ১০% চার্য নিয়ে পুরো ২৪ ঘন্টা মোবাইলে ব্যবহার করতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই।

কি অবাক হচ্ছেন? কিভাবে সম্ভব হলো?

চলুন এবার আমরা  Ultra power Saving এর কিছু দিক জেনে নেই। আমরা সবাই জানি মোবাইলের চার্য সবচেয়ে বেশি ড্রেইন করে গেমস খেললে আর ক্যামেরার ফাংশন অন থাকলে। তাছাড়া blue-tooth, wifi, gps এইগুলা অনেক ব্যাটারি দখল করে রাখে।  আপনি যখন Ultra power Saving মোড অন করবেন তখন আপনি চাইলেও গেমস, মিউজিক প্লেয়ার বা blue-tooth, wifi, gps এই গুলা ব্যবহার করতে পারবেননা। শুধু মাত্র আপনি ব্রাউজিং, ফোন কল আর টেক্সট মেসেজ করতে পারবেন। আর যখন আপনার মোবাইলের ডিসপ্লে অফ হবে তখন অটোমেটিক মোবাইলের ডাটা বন্ধ হয়ে যাবে।

কাজেই যারা দরকারী কাজে মোবাইল ব্যবহার করেন বা ব্যবসায়ীক কাজ করেন, তাদের জন্য Samsung Galaxy S5 হবে একটি আদর্শ ফোন।

 

মন্তব্যসমূহ